শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০২:২৭ পূর্বাহ্ন

ব্যাংদহা বাজারে অবৈধভাবে সরকারি ৩০টি কেওড়া গাছ কাটার অভিযোগ

টুডে ডেস্ক / ৩৬৪
প্রকাশের সময় : বুধবার, ১৯ জানুয়ারী, ২০২২

সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ফিংড়ি ইউনিয়নের ব্যাংদহা বাজারে সরকারি জায়গায় বেড়ে ওঠা অবৈধভাবে কেওড়া বাগান কাটার অভিযোগ উঠেছে। বাজারের মাছের সেট সংলগ্ন মরিচ্চাপ নদীতীরের বিশাল কেওড়া বাগানের ৩০টি গাছ অবৈধভাবে কেটে বাজার কমিটির সভাপতি রাজ্যেশ^র দাস, সাধারণ সম্পাদক শেখ মোনায়েম ও এস এম ফিরোজ আহমেদ টুটুলের বিরুদ্ধে গাছগুলো বিক্রির অভিযোগ করেছেন বাজারের স্থানীয়রা। এতে ক্ষুব্ধ হয়েছেন বাজারের দোকানদার ও স্থানীয় জনসাধারণ। এ বিষয়ে খুলনা বিভাগীয় কমিশানার মো: ইসমাইল হোসেন এনডিসি, সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফাতেমা-তুজ-জোহরার নিকট অভিযোগ করেছেন বাজারের ভুক্তভোগী ব্যক্তিবর্গ।

অভিযোগে জানা যায়, সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ফিংড়ি ইউনিয়নে অবস্থিত ঐতিহ্যবাহী ব্যাংদহা বাজারে দক্ষিণ পাশে পরিচ্চাপ নদীতীরে বিশাল কেওড়া বাগানে শত শত গাছ রয়েছে। এর পাশেই অবস্থিত মাছের বাজার (মাছের সেট/কাটা)। সম্প্রতি মরিচ্চাপ নদী খননের প্রস্তুতি নিচ্ছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। সে কারণে পাউবো কর্তৃপক্ষ নদীর দুই তীরে মাপজোক করছে। এরই ফাকে গত শুক্রবার ১৪ জানুয়ারি ২০২২ তারিখে ব্যাংদহা বাজার কমিটির সভাপতি রাজ্যেশ^র দাস, সাধারণ সম্পাদক শেখ মোনায়েম ও এস এম ফিরোজ আহমেদ টুটুলের নেতৃত্বে ৩০টি কেওড়া গাছ কেটে স্থানীয় মোসেল উদ্দীনের ছেলে মিঠুর নিকট বিক্রি করে দেওয়া হয়েছে। এ সংক্রান্ত কোন কর্তৃপক্ষ কোন নিলামের কোন পদ্ধতি গ্রহণ করেনি।

এদিকে, নদী হচ্ছে পানি উন্নয়ন বোর্ডের মালিকানাধীন। যে কারণে এই গাছ কোন কর্তৃপক্ষের বিক্রি বা কাটার এখতিয়ার রয়েছে সে বিষয়ে কেউ পরিস্কার কিছু বলতে পারছেন না। সে কারনে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার অভিযোগ পেলে ফিংড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান লুৎফর রহমানকে বিষয়টি দেখতে বলেন এবং ফিংড়ি ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তাকে সরেজমিনে তদন্ত করতে নির্দেশ দেন। এক পর্যায়ে ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা মনীন্দ্র নাথ সরকার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। ফিংড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান লুৎফর রহমান জানান, মরিচ্চাপ নদী খননের জন্য দুই পাড়ের গাছ কাটার প্রয়োজন হতে পারে। তবে, তা হতে হবে যথাযথ নিয়মে।

সাতক্ষীরা পানি উন্নয়ন বোর্ড-২ এর সংশ্লিষ্ট উপ-সহকারী প্রকৌশলী সাইদুর রহমান জানান, এই জায়গা পানি উন্নয়ন বোর্ডের না। গাছগুলোও পাউবোর নয়। ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা (নায়েব) মনীন্দ্র নাথ সরকার জানান, গাছগুলো সরকারি ১নং খাস খতিয়ানভুক্ত জায়গায় ছিল। পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) মরিচ্চাপ নদী খননের জন্য সীমানা করার কারণে গাছগুলো কাটা পড়বে। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। বাজার কমিটির সভাপতি রাজ্যেশ^র দাশের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

ব্যাংদহা বাজার কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এস এম ফিরোজ আহমেদ টুটুল জানান, আমরা স্থানীয় কয়েকজন সরকারি জায়গায় গাছগুলো লাগিয়েছিলাম। এ বিষয়ে বন বিভাগকে অবহিত করা হয়েছে। তারা ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। তবে, আমরা উপকারভোগী (রক্ষাণাবেক্ষণকারী) হিসেবে একটি অংশ পাবো। সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফাতেমা-তুজ-জোহরার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, গাছগুলো ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তার মাধ্যমে নিলামে বিক্রি করা হবে।


এই শ্রেণীর আরো সংবাদ