HEADLINE
জনগণের ক্ষতি করে কোনো কাজ করা যাবে না- ঝাউডাঙ্গায় বেত্রবতী নদী খনন কাজ পরিদর্শনে এমপি রবি সাতক্ষীরার উৎপাদিত টমেটো যাচ্ছে রাজধানী’সহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় সাতক্ষীরা সীমান্তে অপরাধ দমনে বিজিবি ও বিএসএফ এর পতাকা বৈঠক ঝাউডাঙ্গা হাইস্কুল জামে মসজিদের ওযুখানা নির্মাণ কাজ উদ্বোধন শ্যামনগরে বিদ্যুৎস্পর্শে কৃষকের মৃত্যু কাশ্মিরি ও থাইআপেল কুল চাষে সফল সাতক্ষীরার মিলন ঝাউডাঙ্গা সড়কে বাস উল্টে ১০জন আহত ঝাউডাঙ্গায় জমকালো আয়োজনে শুরু হচ্ছে পৌষ সংক্রান্তি মেলা কালিগঞ্জে শীতার্ত মানুষের পাশে ”বিন্দু” মাদ্রাসা শিক্ষক শামসুজ্জামানের বিরুদ্ধে ফের ছাত্র বলাৎকারের অভিযোগ
মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১১:৪৬ পূর্বাহ্ন

নৌকা সংস্কারে ব্যস্ত সুন্দরবনের জেলেরা, তিন মাস পর খুলছে তাদের দুয়ার

আব্দুল কাদের, শ্যামনগর / ২২৬
প্রকাশের সময় : সোমবার, ২৯ আগস্ট, ২০২২

দীর্ঘ তিন মাস সুন্দরবন প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা ছিল। এসময়টাতে সুন্দরবনে প্রবেশ করতে পারেনি মৎস্যজীবি জেলেসহ পর্যটকরা। ফলে সুন্দরবনের ওপর নির্ভরশীল জেলেরা এই তিন মাস সুদের টাকায় সংসার চালিয়ে হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন। একদিনে সুদের ঋণের চাপ মাথার উপরে, অন্যদিকে আবার ঋণ নিয়ে নৌকা সংস্কার করে সুন্দরবনে প্রবেশের প্রস্তুতি নিচ্ছে উপকূলীয় জেলেরা।

চলতি বছরের ১ জুন থেকে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত সুন্দরবনে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞার প্রজ্ঞাপন দেয় মন্ত্রিপরিষদ। দীর্ঘ তিন মাস পরে আগামী ১ সেপ্টেম্বর থেকে বৈধভাবে সুন্দরবনে প্রবেশের সুযোগ পাবে জেলেসহ পর্যটকরা।

এসময়ে নৌকা সংস্কার ও অন্যান্য প্রস্তুতিপর্ব নিয়ে বেশ ব্যস্ত সময় পার করছেন জেলেরা। তবে ঋণের বোঝা নিয়ে হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন জেলেরা। সুদের টাকা নিয়ে তিন মাস সংসার চালিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন তারা। সুন্দরবনে মাছ ধরতে যেতে গেলে নৌকা সংস্কার করাটা জরুরি। তাই বাধ্য হয়ে আবারও ঋণ নিয়ে এ সমস্ত কাজ করছে জেলেরা।

এদিকে, বনবিভাগের পক্ষ থেকে জেলেদের সহযোগিতার আশ্বাস দিলেও সেটার বাস্তবায়ন করা হয়নি।শ্যামনগর বুড়িগোয়ালিনী এলাকার মৎসজীবি হামিদুল ইসলাম জানান, তিনমাস সুদের টাকা নিয়ে সংসার চালিয়ে এখন দিশেহারা হয়ে পড়েছি। তাই বাধ্য হয়ে কয়েক ধাপে ঋণ নিতে হয়েছে। আগামী মাস থেকে সুন্দরবনে মাছ ধরতে যেতে হবে তাই ঋণ নিয়ে নৌকা, জাল সংস্কার করতে হচ্ছে। মাথার উপরে এত বড় ঋণের বোঝা নিয়ে সুন্দরবনে ফিরতে হচ্ছে।
মো. জামসেদ নামের অপর এক মৎস্যজীবি জানান, বছরে পাঁচ মাস সুন্দরবনে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা থাকে। তাই এই পাঁচ মাসে যে পরিমাণ সুদের ঋণ গ্রহণ করতে হয় সেটা পুরো বছরের আয় দিয়েও শোধ করা যায় না। বছরের প্রতিটা দিন-ই ঋণগ্রস্ত হয়ে থাকতে হয়। মাথার ওপর এত বড় ঋণের বোঝা নিয়ে সুন্দরবনে যেতে হবে তবে এই ঋণ কাটিয়ে উঠার সম্ভবনা খুবই কম

সাতক্ষীরা রেঞ্জ কর্মকর্তা এম,কে,এম ইকবাল হোসাইন চৌধুরী বলেন সেপ্টেম্বর ১তারিখ থেকে বৈধ্য ভাবে সুন্দরবনে প্রবেশ করতে পারবে জেলে বাওয়ালীরা।


এই শ্রেণীর আরো সংবাদ