HEADLINE
শ্যামনগরে ইটভাটায় জ্বালানি হিসাবে ব্যবহার হচ্ছে কাঠ সাতক্ষীরায় ঔষধ ফার্মেসী থেকে ৯ হাজার পিচ নেশাদ্রব্য ট্যাবলেটসহ গ্রেপ্তার ২ জমকালো আয়োজনে ঝাউডাঙ্গায় ৮ দলীয় ফুটবল টুর্ণামেন্ট উদ্বোধন যশোরের কেশবপুরে কোটি কোটি টাকার সোলার স্ট্রিট লাইট নষ্ট! ভূয়া এতিম দেখিয়ে বছরের পর বছর সরকারি অর্থ আত্মসাৎ! ঝাউডাঙ্গায় মেয়াদবিহীন ও লাইসেন্স ছাড়া চলছে বেকারী পণ্য বাজারজাতকরণ ছাত্র-ছাত্রীদের পাঠদানে ফিরে আনা জরুরী ঝাউডাঙ্গায় গলায় ফাঁস দিয়ে কলেজ ছাত্রের আত্মহত্যা নলতায় ডা: ছবুরের বাড়ীতে দুর্ধর্ষ চুরি, টাকাসহ স্বর্ণালংকার লুট  স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানের নারী ও যুববান্ধব বাজেটের অন্তরায়
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর ২০২২, ০৭:৩৯ পূর্বাহ্ন

পঞ্চম শ্রেণির স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা, অভিযুক্ত লম্পট পলাতক!

নিজস্ব প্রতিবেদক / ১৭০
প্রকাশের সময় : বুধবার, ৯ নভেম্বর, ২০২২

কিশোরী থেকে পুরোপুরি যৌবনে পদার্পণ করেনি এখনো। তবে তার আগেই ধর্ষণ করে এক নরপিশাচ গর্ভবতী করেছে পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ুয়া মাত্র দশ বছরের কিশোরীকে। স্বামী পরিত্যক্তা ওই কিশোররীর মা তিন বোনকে নিয়ে বাবার বাড়িতে থেকে জীবিকা নির্বাহ করে। ওই কিশোরীর পরিবার বর্তমানে চরম নিরাপত্তাহীনতা এবং শঙ্কায় রয়েছে।

তালা উপজেলার নগরঘাটা ইউনিয়নের পোড়ারবাজার এলাকার ২নং ওয়ার্ডের মোড়লপাড়ার মৃত ইব্রাহিম মোড়লের পুত্র পোল্ট্রি মুরগি ব্যবসায়ী মো: শাহেদ আলী মোড়ল (৫৮) তার বাড়ির পাশে এক কিশোরীকে ভয়-ভীতি দেখিয়ে কয়েকবার ধর্ষণ করার ফলে সেই কিশোরী এখন গর্ভবতী হয়ে পড়েছে। এদিকে এঘটনা এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে অভিযুক্ত লম্পট শাহেদ আলীকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। গর্ভবতী ওই কিশোরীর কাছ থেকে জানা গেছে, কিছুদিন পূর্বে শাহেদ আলী নানি ডাকছে বলে কথা বলে তার পোল্ট্রি মুরগির খামারে ডেকে নিয়ে যায়। এরপর ওই কিশোরীকে ছুরির ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করে। এ কথা কাউকে না বলার জন্য ওই কিশোরীকে বিভিন্ন ভয়-ভীতি দেখায়। এভাবে বিগত কয়েকমাস ধরে ওই কিশোরীকে পর্যায়ক্রমে ধর্ষণ করে যাচ্ছে ওই লম্পট শাহেদ আলী। এক পর্যায়ে ওই কিশোরীর পেট বড় হতে থাকলে বিষয়টি তার মায়ের নজরে আসে। বুধবার সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, বর্তমানে ওই কিশোরী চার মাসের গর্ভবতী। এ নিয়ে ওই কিশোরীর পরিবার দুশ্চিন্তায় পড়ে গেছে। কিশোরীর বাবা নেই, মায়ের কাছে থাকে। গরিব মানুষ। কি হবে এখন ওই কিশোরীর? কে করবে এর সুষ্ঠু বিচার? গরীব মানুষ হিসাবে কিশোরীর পরিবার সুষ্ঠু বিচার পাবে কিনা সেটির শঙ্কায় রয়েছে। এ ব্যাপারে নগরঘাটা ইউনিয়ন পরিষদের ২নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো: নবিনেওয়াজ সরদার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। গর্ভবতী ওই কিশোরীর মা কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, আমার মেয়েকে কয়েকবার বলেছি কেউ তাকে কিছু করেছে কিনা। তবে সে ভয়ে কখনো স্বীকার করেনি। আমার সন্দেহ সৃষ্টি হলে পোড়ারবাজারের হোমিওপ্যাথিক ডাক্তার নজরুল ইসলামের কাছে নিয়ে যায়। নিয়ে গেলে ডাক্তার পরীক্ষা করতে বলেন। তখন আমার মনে ভয় সৃষ্টি হয়। ডাক্তার পরীক্ষা করে বলেন, আমার মেয়ের পেটে বাচ্চা। তখন বাড়িতে এনে জিজ্ঞাসা করলে সবকিছু বলে। এ নিয়ে শাহেদ আলী ১ লক্ষ টাকা দিয়ে মিটিয়ে নেওয়ার কথা বলেছে। তবে আমি টাকা নিতে চাইনা, এর বিচার চাই। এখন তো আমি আর আমার মেয়েকে বিয়ে দিতে পারবোনা। বাচ্চা নষ্ট করলে আল্লাহর কাছে গোনাহগার হয়ে যাবো। তাই ধর্ষক শাহেদ আলীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। যাতে এমন কাজ আর কেউ করতে না পারে। একই সাথে আমার মেয়ের অনাগত সন্তান এবং তার ভবিষ্যতের জন্য যাতে একটা সুরাহা হয় তারজন্য দাবি জানাই। কিশোরীর মার দাবি তারা যাতে এই ঘটনার সঠিক ও সুষ্ঠু বিচার পায় তারজন্য স্থানীয় মেম্বার-চেয়ারম্যান, ইউএনও, ওসি, জেলা প্রশাসক সহ জেলা পুলিশ সুপারের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।


এই শ্রেণীর আরো সংবাদ