HEADLINE
পরিবারের সবাইকে অজ্ঞান করে ১০ লক্ষ টাকার মালামাল লুট! বাংলাদেশের মেয়েরা এখন আর পিছিয়ে নেই এমপি রুহুল হক ভোমরায় পাসপোর্ট যাত্রীদের তল্লাশির নামে বিজিবির হয়রানি সাতক্ষীরা পৌরমেয়র চিশতিসহ পৌর বিএনপির ১০ নেতা আটক শাশুড়ির কামড়ে জামাইয়ের কান ও জামাইয়ের কামড়ে শাশুড়ির হাতের শিরা বিছিন্ন কালিঞ্চী এ. গফ্ফার মাধ্যঃ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন বন্দে আদালতে মামলা বৈকারীতে ১’শ পিস ইয়াবাসহ চোরাকারবারি গ্রেপ্তার রাত পোঁহালেই দেবহাটা প্রেসক্লাবের নির্বাচন সাতক্ষীরায় ছাত্রলীগ নেতাকে অস্ত্রকান্ডে ফাঁসিয়ে ভারতে পালালেন মূলহোতা নির্বাচন নিয়ে ভাবার কিছু নেই, আমরা গণতান্ত্রিক দল : সাতক্ষীরায় আ.ক.ম মোজাম্মেল হক
বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ০৬:৩৮ পূর্বাহ্ন

দিনমজুর দেখিয়ে বল্লীতে টিসিবি’র উপকারভোগীদের তালিকায় শিক্ষকের নাম!

মোমিনুর রহমান সবুজ / ৮২১
প্রকাশের সময় : সোমবার, ২১ মার্চ, ২০২২

সাতক্ষীরা সদর উপজেলার বল্লী ইউনিয়নের ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি)’র উপকারভোগী তালিকা তৈরীতে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে।

জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের মাধ্যমে সরকারী বিক্রয় সংস্থা (টিসিবি)’র তালিকাভুক্ত প্রতি পরিবারের জন্য রমজানের আগে একবার প্রতি লিটার ১১০ টাকা দরে দুই লিটার সয়াবিন তেল, প্রতি কেজি ৫৫ টাকা দরে দুই কেজি চিনি, প্রতি কেজি ৬৫ টাকা দরে দুই কেজি মসুর ডাল পাবে। আবার রমজানের মাঝামাঝি সময় থেকে ঈদের আগ পর্যন্ত একই পরিমাণ পণ্য আরেক দফা দেয়া হবে পরিবারগুলোকে। তবে অতি দরিদ্র জনগোষ্টীকে তালিকায় উপকারভোগী হিসেবে অন্তর্ভূক্তির জন্য সরকারী নির্দেশনা থাকলেও সেটি মানা হয়নি। মেম্বার ও চেয়ারম্যানের আস্থাভাজন লোকজনকে তালিকাভুক্ত করে উপকারভোগীদের তালিকা সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে জমা দেয়া হয়েছে। এ ইউনিয়নে ৬০৮টি পরিবার হ্রাসকৃত মূল্যে টিসিবির পণ্য পাবেন। বল্লী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান-মেম্বাররা নিজেদের ইচ্ছেমতো স্বজনপ্রীতির মাধ্যমে নিজস্ব লোকজনদের তালিকাভুক্ত করে সরকারের একটি জনহিতকর মহৎ কাজকে বিতর্কের মুখে ঠেলে দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন সচেতন মহল।

স্থানীয়রা অভিযোগ করেছেন, বল্লী ইউনিয়নে বাড়ি বাড়ি গিয়ে অতি দরিদ্র লোকদের তালিকাভুক্ত করা হয়নি। ইউনিয়ন পরিষদে বসেই টিসিবির উপকারভোগীদের তালিকা তৈরী করা হয়েছে। তালিকায় একই পরিবারের একাধিক সদস্য, সরকারি চাকুরীজীবি, অর্ধশত বিঘা জমির মালিক, কংক্রিটের তৈরী বড় প্রাসাদের মালিক, মেম্বার-চেয়ারম্যানদের আত্মীয়-স্বজন, স্বচ্ছল ও সরকারী সুবিধাভোগী লোকজনদের উপকারভোগীর তালিকায় অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে। স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, প্বার্শবর্তী অন্যান্য ইউনিয়নে দরিদ্র লোকজনের বাড়ি বাড়ি গিয়ে উপকারভোগী যাচাই-বাচাই করা হলেও বল্লী ইউনিয়নে তা মোটেও করা হয়নি। ফলে ৪নং ওর্য়াডের সাবেক ইউপি সদস্য গোলাম কিবরিয়ার ছেলে আমতলা খানজিয়া দাখিল মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক মেহেদী হাসান, ঘরচালা গ্রামের মৃত হযরত সরদারের ছেলে অর্ধশত বিঘা জমির মালিক ইউনুস সরদার, একতলা বাড়ী বাজারে তিনটি দোকানের মালিক সুরমান আলী, মৃত লেয়াকতের ছেলে ১৫ বিঘা জমিসহ পাঁকা বাড়ীর মালিক রবিউল ইসলামসহ এমন অনেকের নাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান-মেম্বারদের অনুগত লোকজনদের তালিকায় অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে। ফলে প্রকৃত দরিদ্র জনগোষ্টী আসন্ন রমজান মাসে ন্যায্য মূল্যে সরকারী পণ্য ক্রয় থেকে বঞ্চিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। স্থানীয় আ.লীগের নেতারা অভিযোগ করে জানান, বল্লী ইউনিয়নে টিসিবি’র তালিকা তৈরীতে ব্যাপক অনিয়ম হয়েছে। তাদের অনুগত লোকজনকে টিসিবি’র উপকারভোগীর তালিকায় অন্তর্ভূক্ত করে সরকারী ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করেছে। এর ফলে প্রকৃত দরিদ্র জনগোষ্টী বঞ্চিত হচ্ছে।

বল্লী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মহিতুল ইসলাম তার ইউনিয়নে তালিকা তৈরীতে কোন ধরনের অনিয়ম হয়নি বলে দাবি করেছেন। সরকারি চাকুরীজীবি ও অর্ধশত বিঘার জমির মালিক তাদের পেশা দিনমজুর দেখিয়ে কীভাবে তালিকাভুক্ত হলো এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি। তিনি আরো বলেন কাজ করলে ভুল হবে। তবে এ জনপ্রতিনিধির তালিকা সঠিক নয় বলে জানিয়েছেন ওই ইউনিয়নের দরিদ্র বাসিন্দারা। এ ইউনিয়নে গোপনে তালিকা তৈরী করা হয়েছে বলে স্থানীয়দের অভিযোগ। এ বিষয়ে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফাতেমা-তুজ-জোহরা’র সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তার ফোন রিসিভ হয়নি। বিষয়টি তদন্তের জন্য এলাকার হতদরিদ্র বঞ্চিত ব্যক্তিরা জেলা প্রশাসকের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।


এই শ্রেণীর আরো সংবাদ