পার্কিং নিয়ে পুলিশ ও আইনজীবীদের সংঘর্ষে রণক্ষেত্র দিল্লির আদালত

পার্কিং নিয়ে পুলিশ ও আইনজীবীদের সংঘর্ষে রণক্ষেত্র দিল্লির আদালত

অন্যদেশ:: গাড়ি পার্কিং করা নিয়ে বচসা শুরু হয়েছিল। পরে বিষয়টিকে কেন্দ্র করে মারামারিতে জড়াল পুলিশ ও আইনজীবীরা। শনিবার বিকেলে ঘটনাটি ঘটেছে দিল্লির তিসহাজারি আদালতে। উভয়পক্ষের মারামারির ফলে একজন আইনজীবী জখম হয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। গন্ডগোলের সময়ে একটি গাড়িও পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

এপ্রসঙ্গে তিসহাজারি আদালতের বার অ্যাসোসিয়েশনের এক আধিকারিক জয় বিসওয়াল জানান, আদালতে ঢোকার সময়ে এক আইনজীবীর গাড়িতে ধাক্কা মারে পুলিশের গাড়ি। ওই আইনজীবী তাঁর গাড়ি থেকে নেমে এর প্রতিবাদ জানালে গাড়িতে থাকা ৬ পুলিশকর্মী নিচে নেমে আসে। তারপর আইনজীবীকে নিজেদের গাড়িতে তুলে বেধড়ক মারধর করে। বিষয়টি দেখতে পেয়ে পুলিশকে ফোন করেন সেখানে উপস্থিত থাকা ব্যক্তিরা। খবর পেয়ে এসইচও ও স্থানীয় থানার পুলিশকর্মীরা এলেও তাঁদের ভিতরে ঢুকতে দেওয়া হয়নি। বাধ্য হয়ে বিষয়টি হাই কোর্টকে জানানো হয়। এরপর ৬ জন বিচারপতির নেতৃত্বে একটি দল পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে ঘটনাস্থলে আসে। কিন্তু, তাদেরও আদালতে ঢুকতে দেওয়া হয়নি। এমনকী বিচারপতিরা যখন বাধ্য হয়ে চলে যাচ্ছেন তখন গুলি ছুঁড়তে শুরু করে পুলিশ। উভয়পক্ষের গন্ডগোলের সুযোগে উত্তরপ্রদেশ পুলিশের হেফাজত থেকে একজন অপরাধী পালিয়ে যায়।দু’দলের মারামারির সময় পুলিশ কর্মীরা গুলিও ছোঁড়ে বলে অভিযোগ।

এপ্রসঙ্গে দিল্লির বার কাউন্সিলের চেয়ারম্যান কেসি মিত্তাল বলেন, ‘তিসহাজারি আদালতে পুলিশ বিনা কারণে আইনজীবীদের উপর হামলা চালিয়েছে। আমরা এর তীব্র নিন্দা করছি। পুলিশের মারে একজন আইনজীবী গুরুতর জখম হয়েছেন। আর একজন যুব আইনজীবীকে লকআপে আটকে মারধর করা হচ্ছে। তাদের উপর এই অবিচারের শাস্তি চাই। আমরা দিল্লির আইনজীবীদের সঙ্গে আছি।’

এই সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন