সাতক্ষীরা সরকারী কর্মকর্তাদের দূর্ণীতি বিরোধী শপথ পাঠ করালেন ডিসি

সাতক্ষীরা সরকারী কর্মকর্তাদের দূর্ণীতি বিরোধী শপথ পাঠ করালেন ডিসি

মোঃ হাসানউল্লাহ::  ‘আমাদের অফিসে এসে কেউ হয়রানি হবে না, কারো কাছ থেকে অবৈধ সুযোগ সুবিধা নেব না, আমাদের অফিস দুর্নীতিমুক্ত থাকবে’ এই বলে সাতক্ষীরার রাজস্ব প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের শপথ বাক্য পাঠ করিয়ে জেলা প্রশাসনকে দুর্নীতিমুক্ত ঘোষণা করলেন সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল।রোববার (১৩ অক্টোবর) বিকালে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে ‘দুর্নীতিমুক্ত অফিস, নেট-পাটা উচ্ছেদ, ক্লিন সাতক্ষীরা গ্রিন সাতক্ষীরা বাস্তবায়ন, সেবাদান পদ্ধতি ও সেবা সহজীকরণসহ বিভিন্ন বিষয়ে রাজস্ব প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সাথে মতবিনিময়কালে তিনি এই শপথ বাক্য পাঠ করান।

সভায় জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল বলেন, ভূমি নিয়ে যেখানে কাজ হয়, প্রতিটি জায়গায় মানুষ হয়রানি হয়, মানুষ যেন হয়রানি না হয়, সেই উদ্যোগ নিতে হবে। আইনে যা আছে তাই করতে হবে। কারো কাছ থেকে অবৈধ সুবিধা নিয়ে বেআইনি কাজ করা যাবে না। আমাদের উপর যে দায়িত্ব তা সঠিকভাবে পালন করতে হবে। আপনারা করছেন না তা বলবো না। কিন্তু ভূমি সেবা নিয়ে মানুষের মধ্যে ক্ষোভ আছে। এজন্য নিজের কাছে প্রশ্ন করুন। সব পেয়ে যাবেন। জেলা প্রশাসক আরও বলেন, বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের উচ্চ স্তরে আছে। কিন্তু বেশির ভাগ কর্মকর্তা-কর্মচারী দুর্নীতির সাথে জড়িত। অনেক জায়গায় প্রতিষ্ঠানিক দুর্নীতি আছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনী ইশতেহারে দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছিলেন। অনেকে হয়তো ভাবেননি আগামী দিনগুলোতে কি হতে যাচ্ছে। আর দুর্নীতি নয়।

৯ অক্টোবর এই জেলায় আমার এক বছর পূর্তি হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমি ওইদিনই ঘোষণা করেছি ইউনিয়ন ভূমি অফিস, এসিল্যান্ড অফিস, ইউএনও অফিস ও জেলা প্রশাসন কোথাও দুর্নীতি থাকবে না। কারো বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠলে এবং তা প্রমাণিত হলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ইতোমধ্যে কয়েকজনের বিরুদ্ধে বিভাগীয় প্রসিকিউশনের নির্দেশ দিয়েছি. জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল বলেন, জেলা অফিস থেকে কেউ আপনাদের কাছে সুযোগ সুবিধা চাইলে আমি ভাববো তা আমার নামেই হচ্ছে। আপনারা কোন সুযোগ সুবিধা দেবেন না। ডিসি অফিসের কথা বললে দুর্নীতি সহজ হয়ে যায়। কোথাও যদি কাউকে হয়রানি করা হয়, তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। প্রত্যেক অফিসে দুর্নীতিমুক্ত লিখে বোর্ড টানাতে হবে।

কিন্তু শুধু বোর্ডেই সীমাবদ্ধ থাকলে চলবে না। এটা নিশ্চিত করতে হবে। তিনি বলেন, দেশে আমরাই প্রথম বলতে চাই সাতক্ষীরায় ভূমি সেবায় কোন দুর্নীতি হয় না। অতীতের ভুল ত্রুটি কবর দিতে হবে। যা অতীত ভুলবেন না তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আমি আপনাদের ভয়ভীতি ও হুমকি দিতে চাই না উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমি আপনাদের কাছে আহবান করছি সকলে দুর্নীতিমুক্ত থাকুন। আমরা যেন অন্যদের বলতে পারি আমরা দুর্নীতিমুক্ত। জেলা প্রশাসক এ সময় আরও বলেন, কাল জেলা প্রশাসনের সব শাখার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সাথে বসা হবে। সরকার প্রধান যেটা করতে চাচ্ছেন, সেটা বাস্তবায়ন করতে হলে সকলকে কাজ করতে হবে, দুর্নীতি মুক্ত হতে হবে।

এসময় তিনি জেলার সকল অবৈধ নেট-পাটা অপসারণের নির্দেশ দেন। সভায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) এমএম মাহমুদুর রহমানের সভাপতিত্বে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. বদিউজ্জামান ও আরডিসি দেওয়ান আকরামুল হকসহ প্রত্যেক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, প্রত্যেক উপজেলার এসি ল্যান্ড, ইউনিয়ন উপ-সহকারী ভূমি কর্মকর্তা, কানুন গোসহ রাজস্ব প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন। প্রসঙ্গত, গত ৯ অক্টোবর মুজিব বর্ষ পালনে জেলার সকল সরকারি দপ্তরের প্রধানদের নিয়ে অনুষ্ঠিত অগ্রগতি পর্যালোচনা সভায় দুর্নীতির বিরুদ্ধে শূন্য সহিষ্ণুতা ঘোষণা করেন জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল।

এই সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

সাতক্ষীরা বাইপাস সড়কের দূর্ঘটনা রোধে করনীয় (ভিডিও)