পরীক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগে দুই শিক্ষক গ্রেপ্তার

পরীক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগে দুই শিক্ষক গ্রেপ্তার

উত্তম চক্রবর্তী,মণিরামপুর(যশোর)::  রাজগঞ্জে দাখিল পরীক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগে দায়ের করা মামলার  এজাহার ভুক্ত ২ মাদরাসা শিক্ষককে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃতরা হলেন তরিকুল ইসলাম (২৮) ও ঘটনায় জড়িত অপর শিক্ষক নজরুল ইসলাম (৫২) । আটক তরিকুল মণিরামপুর উপজেলার বালিয়াডাঙ্গা খানপুর গ্রামের মোন্তাজের ছেলে এবং শিক্ষক নজরুল ইসলাম একই উপজেলার রাজগঞ্জের ঝাঁপা গ্রামের মৃত আব্দুল মজিদের ছেলে।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় প্রেসব্রিফিং-এ আটকের তথ্য নিশ্চিত করে যশোরের সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার রাকিব হাসান সাংবাদিকদের জানান, ঘটনার পর থেকে দুই আসামি পলাতক ছিল। তাদের ধরতে তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহারসহ পুলিশ ব্যাপক তৎপরতা চালায়। এরই ধারবাহিকতায় ধর্ষণের সাথে জড়িত মাদরাসা শিক্ষক নজরুল ইসলামকে খুলনা জেলার ডুমুরিয়া বাজার থেকে সোমবার বিকালে আটক করা হয়। প্রধান আসামী তরিকুলকে আটকের স্বার্থে কৌশলগত কারণে নজরুলকে আটকের বিষয়টি প্রকাশ করা হয়নি।
মঙ্গলবার বিকালে থানার এস আই জহির রায়হান ও আকিকুর রহমান গোপন সংবাদের ভিত্তিতে যশোর সদর উপজেলার চাঁচড়া এলাকা থেকে তরিকুল ইসলামকে আটক করে।
প্রসঙ্গত. ৩০ সেপ্টেম্বর কোচিং শেষে বাড়ি ফেরার পথে ওই শিক্ষার্থীকে কৌশলে আটকে রাখে দুই শিক্ষক তরিকুল ইসলাম ও নজরুল ইসলাম। মামলার বিবরনে আরো বলা হয়, শিক্ষার্থী ধর্ষণের শিকার হলে রক্তাত ও অচেতন অবস্থায় মাদরাসার বাথরুমের পাশে বাঁশবাগান থেকে উদ্ধার করে বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করে স্বজনরা। ৩ অক্টোবর বাড়ি ফিরে আসলে ঘটনা প্রকাশ করলে তোড়পাড় সৃষ্টি হয়। এক পর্যায় শিক্ষার্থীর স্বজনসহ বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসি মাদরাসা ঘেরাও করে ঘটনার সাথে জড়িত নজরুল ইসলামকে মারধর করে আটকে রাখে। পরে কৌশলে সে পালিয়ে যায়। ওই সময় পরীক্ষার্থীর পিতা ২ শিক্ষকের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন।
এদিকে গত ৬ অক্টোবর শনিবার ওই শিক্ষার্থীর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্নসহ আদালতে ২২ ধারায় জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়।

এই সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন