কয়রায় বিভিন্ন পুজা মন্ডব পরিদর্শনে উপজেলা আ’লীগ সভাপতি মোহসিন রেজা

কয়রায় বিভিন্ন পুজা মন্ডব পরিদর্শনে উপজেলা আ’লীগ সভাপতি মোহসিন রেজা

কয়রা প্রতিনিধি:: হিন্দু ধর্মের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় অনুষ্ঠান শারদীয় দুর্গা উৎসব উপলক্ষে দশমীতে বিভিন্ন দুর্গাপুজা মন্ডব পরিদর্শন ও শারদীয় শভেচ্ছা বিনিময় করেছেন কয়রা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান জি এম মোহসিন রেজা।

তিনি মঙ্গলবার দিনভর কয়রা উপজেলার পুজামন্ডব পরিদর্শন করেন ও হিন্দু ধর্মীয় নেতাদের সাথে শারদীয় কুশল বিনিময় করেন এবং পুজায় আইন শৃঙ্খলা বিষয়ে খোঁজ খবর নেন। আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় আছে বলেই সকল ধর্মের মানুষ আজ স্বাধীনভাবে আনন্দ মুখর পরিবেশে তাদের ধর্মীয় অনুষ্ঠান উৎযাপন করতে পারছে। কয়রায় বিভিন্ন পুজা মন্ডব পরিদর্শন কালে তিনি একথা বলেন। এসময় তিনি পুজা উৎযাপন কমিটির নেতৃবৃন্দ ও ভক্তদের সাথে কুশল বিনিময় করেন এবং আর্থিক সহায়তা প্রদান করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন, কয়রা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কমলেস কুমার সানা, উপজেলা আ’লীগের সহ সভাপতি বাবু খগেন্দ্রনাথ মন্ডল, কোষাধ্যক্ষ মুক্তিযোদ্ধা ইয়াকুব আলী। প্রচার সম্পাদক ও কয়রা প্রেস ক্লাবের সভাপতি এসএম হারুন অর রশিদ, মহারাজপুর ইউপি চেয়ারম্যার ও যুবলীগ নেতা জিএম আব্দুল্লাহ আল মামুন লাভলু, আ’লীগ নেতা নির্মল চন্দ্র, আলহাজ্ব আঃ সামাদ গাজী, মহারাজপুর প্যানেল চেয়ারম্যান ইউপি সদস্য মোস্তফা কামাল, ইউপি সদস্য আকবর হোসেন ঢালী, মহিলা ইউপি সদস্য নুরজাহান সামাদ, যুবলীগ নেতা জহিরুল ইসলাম, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মেসবাহ উদ্দিন মাছুম, রোকনুজ্জামান কাজল, আল আমিন খোকন, ইখতিয়ার উদ্দীন হিরো, তরিকুল ইসলাম সাগর, বাবু ও মফিজ, বঙ্গবন্ধু যুব পরিষদ সভাপতি সাংবাদিক শাহজাহান সিরাজ, সাধারণ সম্পাদক মহররম হোসেন । সেচ্ছাসেবকলীগ নেতা আকতারুল ইসলাম, প্রজন্মলীগ সাধারণ সম্পাদক শামীম রেজা।

এছাড়া উপজেলা আ’লীগ, ছাত্রলীগ,যুবলীগ, কৃষকলীগ, সেচ্ছাসেবকলীগ,প্রজন্মলীগসহ অঙ্গসংগঠনের সকল নেতৃবৃন্দ। দলীয় সূত্রে জানায় উপজেলা আ’লীগ সভাপতি সকাল ১০ টায় উপজেলার মহারাজপুর ইউনিয়নের দঃ মঠবাড়ী, মঠবাড়ী কালী মন্দির, খড়িয়া সার্বজনীন দুর্গামন্দির, বাগালী ইউনিয়নের বগা, মালিখালী, বাঁশখালী, ঠাকুরের চক, গাজীনগর সহ বিভিন্ন পুজামন্ডব পরিদর্শন করেন। দুপুরে আমাদী কালী বাড়ী, বাজারে দুর্গামন্দির কাটাখালী মন্দির, দাস পাড়া মন্দির, সুড়িইখালী দুর্গা মন্দিরসহ কয়রা উপজেলায় বিভিন্ন মন্দির পরিদর্শনকালে হিন্দু ধর্মীয় নেত্রীবৃন্দের সাথে মত বিনিময় করেন।

এই সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

এস,এম,হুমায়ূন কবির,চুয়াডাঙ্গা:: হাতী দিয়ে কৌশলে প্রতিদিন হাতিয়ে নিচ্ছে হাজার হাজার টাকা । খুলনা থেকে হাতী নিয়ে চুয়াডাঙ্গা আসা মাউত তরিকুল ইসলাম অকপটে স্বীকার করেছে ,হাতী দিয়ে সে দিনে দুই থেকে তিন হাজার টাকা সাধারন জনগন এর কাছ থেকে হাতিয়ে নেওয়ার কথা । পানিতে তিমি আর ডাঙ্গায় হাতীয় সবচেয়ে বড় প্রানি । মানুষ তার বুদ্ধিমত্তা দিয়ে বিশাল দেহের প্রানী হাতী কে ফাঁদে ফেলিয়ে মানুষ তার বস্ মানিয়েছে ।অর্বনীয় নির্যাতন করেই হাতীকে বসে আনা হয়েছে । এই বসে আনা হাতী দিয়ে পাহাড়ে কাঠ বহন করা হত,দর্শকের চিত্ত বিনেদন এর জন্য সার্কেসে খেলা দেখাতো আর এখন হাতী দিয়ে প্রকাশ্য হাতীদিয়ে বাড়ির দরজায়,দোকানের সামনে,সূড় তুলে এবং রাস্তায় ছোট বড় যানবহনের সামনেহাতী আড় হয়ে প্রতি দিন হাজার হাজার টাকা চাদাবাজি করতে দেখা যায় মাউত কে । চুয়াডাঙ্গার অলি গলিতে তরিকুল এই অবৈধ ব্যাবসা করছে বহু দিন থেকে ।এলাকার সাধারণ জনগন হাতীর হাত থেকে বাচতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছে ।

হাতীর চাঁদাবাজীতে অস্থির