আশাশুনিতে সুপেয় পানির অপেক্ষায় প্লাবিত মানুষ

আশাশুনিতে সুপেয় পানির অপেক্ষায় প্লাবিত মানুষ

জি এম মুজিবুর রহমান : সুপার সাইক্লোন আম্ফানে প্লাবিত ও ক্ষতিগ্রস্ত আশাশুনি উপজেলার মানুষ সুপেয় পানির জন্য লম্বা লাইনে অপেক্ষা করে আসছেন। প্রতিদিন নির্দিষ্ট সময়ে পানি সরবরাহ করা হবে প্রত্যাশায় দীর্ঘ লাইনে অপেক্ষা করতে হয় সকলকে।
আশাশুনি উপজেলার প্রায় সকল এলাকা সুপেয় পানির অভাব বছরের অধিকাংশ সময়ে লেগেই থাকে। টিউবওয়েলের পানিতে আর্সেনিক ও লবণাক্ততা, পুকুরে বর্ষা শেষ হলেই পানি থাকেনা। তাই বড় অংশের মানুষকে বাইরে থেকে আনা পানি ক্রয় করে খেতে হয়। অনেক এলাকায় ব্যক্তি ও এনজিওর উদ্যোগে পানি রিপেয়ারিং করার প্লান্ট স্থাপিত হয়েছে, সেখান থেকে লিটার হিসাবে পানি ক্রয় করে নিতে হয়। প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষকে দীর্ঘ পথ অতিক্রম করে পায়ে হেটে বা নৌকায় চড়ে কলসে পানি এনে খেতে হয়। ঘূর্ণিঝড়ে তান্ডবে প্লাবিত এলাকার মানুষ বর্তমানে খাবার পানির সমস্যা জর্জরিত। সরকারি উদ্যোগে জন স্বাস্থ্য প্রকৌল অধিদপ্তর, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও লিডার্স নামে একটি এনজিও বিভিন্ন এলাকায় বিনামূল্যে পানি সরবরাহ করছে। কয়েকপি পয়েন্টে পানি পৌছে দেওয়া হয়। ফলে সকাল থেকে পানি পেতে ঐসব পয়েন্টে কলস নিয়ে মহিলা কিংবা পুরুষরা লাইনে দাড়িয়ে থাকেন। এক সময় তাদের কাছে পৌছে দেওয়া হয় পানি। এমনই একটি পয়েন্ট আশাশুনি দক্ষিণ পাড়া এলাকায় বাইপাস সড়কের পাশে আশাশুনি দক্ষিণপাড়া, দয়ারঘাট ও জেলেখালি গ্রামের আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মানুষের দীর্ঘ লাইন। সুপেয় পানির চাহিদা মেটাতে এভাবেই দীর্ঘ লাইনে কলস রেখে পাশে অপেক্ষা করছেন নারীরা।

এই সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

%d bloggers like this: