“দেখা হবে প্রিয়”

“দেখা হবে প্রিয়”


ফারজানা হোসেন::

নিস্তব্ধ আজ শহর
নিস্তব্ধ পুরো বিশ্ব,
থমকে গেছে আজ সময়।
চির চেনা গলি আজ ;
পরিণত হয়েছে অচেনায়,
চির চেনা শহর আজ
অচেনা হয়ে গেছে।
চায়ের কাপে বসে না আজ
সেই প্রিয় আড্ডা।
কথায় কথায় মুখোরিত হয় না আজ ;
শহরের ওলি গলি।
চারিদিকে আজ এক অদ্ভুত নীরবতা।
নেই কোনো শোরগোল; নেই কোনো শব্দ,
শুধুই নিস্তব্ধতা।
ফুলগুলো ঝরে পড়ে যাচ্ছে!
নেওয়ার লোক নেই বলে,
পাখিগুলো আজ কেমন জানি?
নীরব হয়ে গেছে,
আজকাল আর তেমন কলরব করে না!
প্রিয় চেনা মুখগুলো কেমনজানি?
অচেনায় রূপ নিয়েছে,
মাঝে মাঝে তোমায় খুব মনে পড় প্রিয়!
ভাবি আবার দেখা হবে কি?
হুম হবে প্রিয়,
আমাদের আবার দেখা হবে প্রিয়,
আমাদের আবার দেখা হবে ;
সেই চেনা শহরের গলিতে
কিংবা সেই চেনা রাস্তায়।
দেখা হবে প্রিয় আবার গোলাপ হাতে ;
তোমার অপেক্ষায়।
প্রিয় ততোদিন তোমায় নিয়ে সব অনুভূতিগুলো ;
লিখে রাখবো আমার মনের কোণে।
লিখে রাখবো ডায়েরির পাতায়।
চেনা শহরে তোমার সাথে আবার দেখা হলে ;
এটাই থাকবে তোমার জন্য উপহার।
কি বলো প্রিয়?
পচ্ছন্দ হবে তো?
জানি তা তোমার দারুণ লাগবে,
প্রিয় সেদিন তোমার জন্য চেনা শহরে
গোলাপ হাতে অপেক্ষা করবো।
প্রিয় সেদিন কষ্ট করে ;
শাড়ি পরো।
বহুদিন পর ,
তোমায় সেই শাড়িতে দেখতে চাই!
জানো প্রিয়? এই দূরত্বেও তোমার প্রতি ;
ভালোবাসা কিন্তু কমে নি ;
বরং আরও বেড়েছে।
প্রতি মুহূর্তে তোমায় খুব করে!
অনুভব করেছি, অনুভব করেছি তোমাকে
হারানোর ভয়।
বুঝেছি ঠিক কতোটা জুড় আছো তুমি৷
দেখা হবে প্রিয় আবার চির চেনা শহরে।

এই সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

%d bloggers like this: