দেবহাটায় চালককে খুন করে ইজিবাইক ও স্মার্টফোন নিয়ে গেছে দূবৃর্ত্তরা

দেবহাটায় চালককে খুন করে ইজিবাইক ও স্মার্টফোন নিয়ে গেছে দূবৃর্ত্তরা

মাহমুদুল হাসান শাওন, দেবহাটা: সাতক্ষীরার দেবহাটায় মনিরুল ইসলাম (৩৫) নামের এক চালককে গলায় প্লাস্টিকের রশি দিয়ে শ্বাসরোধে খুন করে ইজিবাইক ও স্মার্টফোন নিয়ে পালিয়ে গেছে দূবৃর্ত্তরা। তিনি দেবহাটা উপজেলার নওয়াপাড়া ইউনিয়নের শিমুলিয়া গ্রামের মৃত ইসমাইল গাজীর ছেলে।
বৃহষ্পতিবার রাত সাড়ে ১০টা পরবর্তী যেকোন সময়ে এ হত্যাকান্ডের ঘটনাটি ঘটে। শুক্রবার সকালে দেবহাটা উপজেলার সখিপুর টেলিফোন টাওয়ার এলাকায় পাকা রাস্তার পাশে একটি সবজি ক্ষেত থেকে গলায় প্লাস্টিকের রশি পেঁচানো অবস্থায় ইজিবাইক চালক মনিরুলের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।
মনিরুলের স্ত্রীসহ স্বজনরা জানান, বৃহষ্পতিবার বাড়ী থেকে দুপুরের খাওয়া শেষে প্রতিদিনের ন্যায় ইজিবাইক নিয়ে বের হয় মনিরুল। কিন্তু অন্যান্য দিনের মতো সন্ধ্যার পর বাড়ীতে না ফিরলে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ে তার পরিবার। রাত সাড়ে ১০টার দিকে তার স্ত্রী ফোন করলে মনিরুল জানায়, কতিপয় ব্যাক্তি দেবহাটা থানায় যাওয়ার কথা বলে তার ইজিবাইকটি ভাড়া করেছে। তাদেরকে পৌছে দিয়ে ভাড়ার টাকা নিয়ে বাড়ী ফিরবে সে। কিন্তু রাত গড়িয়ে ভোর হলেও বাড়ী ফেরেনি মনিরুল। ধারনা করা হচ্ছে, রাতের কোন এক সময়ে মনিরুলের গলায় প্লাস্টিকের রশি দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর তার লাশটি রাস্তার পাশের সবজি ক্ষেতে ফেলে রেখে ইজিবাইক ও তার ব্যবহৃত স্মার্টফোনটি নিয়ে পালিয়ে যায় দূবৃর্ত্তরা। শুক্রবার সকালে স্থানীয়রা সবজি ক্ষেতে লাশটি পড়ে থাকতে দেখে দেবহাটা থানায় খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে লাশটি উদ্ধার করে।
দেবহাটা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বিপ্লব কুমার সাহা খুনের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনাস্থল পরিদর্শনসহ ইজিবাইক চালকের লাশটি উদ্ধার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশটি সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হবে। পাশাপাশি কেবলমাত্র ইজিবাইক ও মোবাইল ফোনের জন্য তাকে খুন করা হয়েছে নাকি অন্য কোন কারনে হত্যাকান্ডটি সংঘটিত হয়েছে সে বিষয়টি পুলিশ খতিয়ে দেখছে বলেও জানান ওসি।

এই সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

%d bloggers like this: