সাপমারা খাল ফের দখলদারের কবলে : ১৯ কোটি টাকার প্রকল্প বাস্তবায়নে সংশয়!

সাপমারা খাল ফের দখলদারের কবলে : ১৯ কোটি টাকার প্রকল্প বাস্তবায়নে সংশয়!

দেবহাটা প্রতিনিধি:: সরকারের ১৯ কোটি টাকা বরাদ্দে চলমান সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার পারুলিয়া সাপমারা খালের পুনঃখনন কাজ শেষ হতে না হতেই খাল দখল করে রীতিমতো কংক্রিটের অবৈধ স্থাপনা নির্মান করে চলেছেন দেব কুমার বিশ্বাস ওরফে দেবু বিশ্বাস নামের প্রভাবশালী এক ব্যাবসায়ী। প্রভাবশালী দেবু বিশ্বাস দেবহাটা উপজেলার উত্তর সখিপুর গ্রামের মৃত রবীন্দ্রনাথ বিশ্বাসের ছেলে এবং সখিপুর বাজারের জনতা ফার্মেসীর মালিক। ১৯ কোটি টাকা ব্যায়ে চলমান খাল খনন কার্যক্রমকে নস্যাৎ করে প্রভাবশালী দেবু বিশ্বাস উপজেলা প্রশাসন কিংবা পানি উন্নয়ন বোর্ডের অনুমতি ছাড়াই সম্পূর্ন অবৈধভাবে সাপমারা খালের মধ্যেই রড, সিমেন্ট ও ইট দিয়ে কংক্রিটের স্থাপনা নির্মান করে চলেছেন।
দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে অবৈধ দখলদারদের দখল প্রবণতায় এবং নাব্যতা হারিয়ে অস্তিত্ব সংকটে পড়া সাপমারা খালটিতে প্রান ফেরাতে গত অর্থবছরেই খালটির ১৯ কিলোমিটার বিস্তৃত এলাকা পুনঃখনন কার্যক্রমের জন্য ১৯ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয় বর্তমান সরকার। সরকারী বরাদ্দে শরু হওয়া খনন কাজ ইতোমধ্যেই প্রায় শেষের পথে। ফলে নাব্যতা ফিরে পাওয়ার পাশাপাশি ক্রমশ প্রান ফিরতে শুরু করেছে অস্তিত্ব সংকটে পড়া এককালের প্রানবন্ত সাপমারা খালটিতে।
কিন্তু সরকারের বরাদ্দকৃত ১৯ কোটি টাকার এ মেগা প্রকল্পটি বাস্তবায়নের আগেই গুড়ে বালি ঢেলে দিচ্ছেন প্রভাবশালী দেবু বিশ্বাস।
সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসনের সার্বিক নজরদারি ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের তত্বাবধানে সুষ্ঠভাবে পুনঃখনন কার্যক্রম চলতে থাকলেও, সম্প্রতি খনন কাজ শেষ হওয়ার আগেই সখিপুর বাজার ব্রীজের দক্ষিনে সাপমারা খালের একপাশ জুড়ে থাকা নিজের দ্বিতল বাসভবন ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ অবৈধ স্থাপনা রক্ষার জন্য মরিয়া দেবু বিশ্বাস আবারো প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে সাপমারা খালের মধ্যেই দেদারছে কংক্রিটের অবৈধ স্থাপনা নির্মান করে চলেছেন।
যদিও একজন দখলদারের পক্ষে কিংবা একদিনেই সাপমারা খালটি দখল করে নেয়া সম্ভব নয়। তবুও একজন প্রভাবশালী দেবু বিশ্বাসের দখলদারিত্ব শুরু হওয়ার পর থেকে আবারো পূর্বের ন্যায় সহস্রাধিক অবৈধ দখলদারের মধ্যে সাপমারা খাল দখলের প্রবণতা ক্রমশ তীব্র হারে বেড়েছে।
এখনই অবৈধ স্থাপনা নির্মানকারী দেবু বিশ্বাসের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেয়া হলে আগামী কয়েক বছরের মধ্যেই কেবলমাত্র দখলদারদের দখল প্রবণতায় সাপমারা খালটি নাব্যতা হারিয়ে আগের মতো প্রানহীন ও অস্তিত্ব সংকটে পড়তে পারে বলে আশংকা করছেন সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ, জনপ্রতিনিধি ও পরিবেশ বিশেষজ্ঞসহ সংশ্লিষ্টরা।
সাপমারা খাল দখল করে প্রভাবশালী দেবু বিশ্বাসের অবৈধ স্থাপনা নির্মানের বিষয়ে সাতক্ষীরা পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো)’র উপ বিভাগীয় প্রকৌশলী রাশিদুর রহমান বলেন, যারাই খাল দখল করে অবৈধ স্থাপনা নির্মান করবে, তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে যেহেতু সাপমারা খালটি পানি উন্নয়ন বোর্ডের একোয়ারকৃত নয়, সেহেতু প্রথমতো এটি এসিল্যান্ডের সম্পত্তি। এক্ষেত্রে দেবহাটা উপজেলা নির্বাহী অফিসার কিংবা সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক তাৎক্ষনিকভাবে দখলদারদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে পারবেন।
ফলে দখলদারিত্বের কবল থেকে সদ্য প্রান ফিরে পাওয়া সাপমারা খালটি রক্ষা এবং অবৈধ স্থাপনা নির্মানকারী দেব কুমার বিশ্বাসের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য দেবহাটা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাজিয়া আফরীন ও সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামালের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী।

এই সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

%d bloggers like this: