শ্যামনগর থানা পুলিশের হস্তক্ষেপে এক গৃহবধু উদ্ধার

শ্যামনগর থানা পুলিশের হস্তক্ষেপে এক গৃহবধু উদ্ধার

শ্যামনগর প্রতিনিধি:: শ্যামনগরের দাতিনাখালীতে স্বামীর অত্যাচারে গৃহবন্দী এক গৃহবধুকে থানা পুলিশের হস্তক্ষেপে উদ্ধার হয়েছে। দাতিনাখালীর রায়হান গাজীর স্ত্রী শারমিন বেগমকে এসিড সাদৃশ্য দ্রব্য নিক্ষেপ করে ঘরে আটকানোর অভিযোগ দায়ের। দাতিনাখালীর রায়হান গাজীর স্ত্রী শারমিন বেগম দায়েরকৃত শ্যামনগর থানায় এজাহার সূত্রে প্রকাশ, তার পিতা সিরাজুল ইসলামে সহিত উত্তর আটুলিয়ার মান্দার গাজীর পুত্র রুহুল আমিন গাজীর সাথে গ্রাম্য বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিরোধ ও মনোমালিন্যের সৃষ্টি হয়। সে আক্রোশে রুহুল আমিন কৌশলে রায়হানকে ভুল বুঝিয়ে তাদের সংসার ভাংতে বিভিন্ন প্রকার অপবাদ ও কুৎসা রটায়। আটুলিয়া ইউপি অফিসে শালিস মধ্যস্ততায় রুহুল আমিন তার কৃতকর্ম স্বীকার করে অঙ্গীকারনামা প্রদান করেন। গত সোমবার (১জুন) রাত্র ৮ টার দিকে তার স্বামীর সংসার দাতিনাখালীতে শারমিনকে একটি ঘরে আবদ্ধ রেখে তার স্বামী রায়হান গাজী, শাশুড়ী রেহানা বেগম, শহিদুল গাজী ও রুহুল আমিন গাজী মারপিট করে। শারমিন আত্মচিৎকার করলে তারা একপর্যায়ে প্লাষ্টিকের বোতলে রক্ষিত এসিড সাদৃশ্য দ্রব্য তার গায়ে নিক্ষেপ করলে শারমিনের কপালের বাম পাশে ও পরিধেয় বস্ত্র দগ্ধ হয়। শ্যামনগর থানা পুলিশ এ ঘটনা জানতে পেরে পুলিশ কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান, রিপন, মামুন সহ পুলিশের একটি টিম রাত্র ১০টার দিকে শারমিন বেগম দাতিনাখালী থেকে উদ্ধার করে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত শারমিন খাতুন শ্যামনগর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। এ ব্যাপারে শ্যামনগর থানার পুলিশ কর্মকর্তা খবির উদ্দীন জানান, শ্যামনগর থানা পুলিশ শারমিনকে উদ্ধার করায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

এই সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

%d bloggers like this: