গণপরিবহনে ভাড়া বৃদ্ধির প্রতিবাদে বিভিন্ন সংগঠনের বিবৃতি

গণপরিবহনে ভাড়া বৃদ্ধির প্রতিবাদে বিভিন্ন সংগঠনের বিবৃতি

সারাদেশের শ্রমজীবী কর্মজীবী ও পেশাজীবীরা মহাসংকটে দিন কাটাচ্ছে। এই অবস্থায় সামাজিক সুরক্ষা বজায় রাখায় অজুহাতে গণপরিবহনের ভাড়া শতকরা ৬০ ভাগ বৃদ্ধি করার সরকারের সিদ্ধান্ত খুবই অন্যায় ও অন্যান্য বলে মনে করেন সাতক্ষীরা জেলা জাতীয় পার্টির নেতা আনোয়ার জাহিদ তপন, জাসদের নেতা শেখ ওবায়দুস সুলতান বাবলু, বাংরাদেশ জাসদের অধ্যাপক ইদ্রিস আলী, জে এস ডি’র নেতা সুধাংশু শেখর, গণফোরামের নেতা আলীনূর খান বাবলুসহ আরও অনেকে।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, সারা বাংলাদেশের মানুষ মহাস্বাস্থ্য ঝুঁকিতে আছেন। জেলায় জেলায় করোনা টেস্ট কেন্দ্র খোলা হয়নি। শ্রমজীবী মানুষের হাতের নগদ অর্থ দেওয়া হয়নি। ডাক্তার-নার্সদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করা হয়নি। এরই মধ্যে দেশের দক্ষিণ অঞ্চলে আম্ফানে বাড়ী ঘর তছনছ, ফসলের ক্ষতি, ভেড়ীবাধগুলো ভেঙে গেছে। মানুষজন খুবই অসহায়। এই অবস্থায় গণপরিবহনে ভাড়া বাড়ানো অন্যায়। প্রয়োজনে গাড়ীর মালিকদের তেল ক্রয়ে ও ভুতুর্কী দেওয়া যেতে পারে। কিন্তু ৬০% ভাড়া বাড়ানো যাবে না। একটি গণতান্ত্রিক দেশে এইভাবে প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে ভাড়া বাড়ানো মানেই হল গণতন্ত্রকে অস্বীকার করায়। তাই অতিসত্ত্বর ভাড়া বাড়ানোর সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করা হউক এবং সেই সাথে আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্থদের আর্থিক সহায়তা প্রদান গরীব মানুষের বাড়ী ঘর নির্মাণ ওস্থায়ী বাধ নির্মাণের দাবি জানান নেতৃবৃন্দ।

সেই সাথে সাতক্ষীরা জেলার স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে জনগণের আস্থায় আনার জন্য করোনা টেস্ট কেন্দ্র খোলা ও জেলায় সরকারী ও বেসরকারী হাসপাতালে সরকারি সমন্বয়ে চিকিৎসা ব্যবস্থা চালু রাখার দাবি জানানো হয়। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

এই সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

%d bloggers like this: