আ.লীগ নেতাকে মারপিট, দেবহাটায় ছাত্রলীগ থেকে তপুকে বহিষ্কার

আ.লীগ নেতাকে মারপিট, দেবহাটায় ছাত্রলীগ থেকে তপুকে বহিষ্কার

মাহমুদুল হাসান শাওন, দেবহাটা: সাতক্ষীরার দেবহাটায় অলোক কান্তি রায় নামের এক আওয়ামী লীগ নেতাকে মারপিটের ঘটনায় জড়িত তপু মন্ডলকে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।
মারপিটে আহত অলোক কান্তি রায় উপজেলার কুলিয়া ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ও শ্যামনগর গ্রামের মৃত শতধর রায়ের ছেলে। অন্যদিকে বহিষ্কৃত তপু মন্ডল কুলিয়ার ৭ নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সদ্য সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও টিকেট গ্রামের মৃজেন মন্ডলের ছেলে। তপু মন্ডল দেবহাটা উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জিএম স্পর্শ ও মানবতার কল্যান  ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান জিএম সৈকতের অনুসারী।
রবিবার বেলা ১২ টার দিকে দেবহাটা উপজেলার পুটিমারী বাজারে একটি শালিস চলাকালীন সময়ে মারপিটের ঘটনাটি ঘটে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, কিছুদিন আগে একটি নারী ঘটিত বিষয়ের শালিসকে কেন্দ্র করে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রঞ্জন মন্ডলের সাথে জিএম সৈকতের মারপিট হয়। এঘটনায় উভয়পক্ষই বাদী হয়ে একে অপরের বিরুদ্ধে দেবহাটা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। দায়েরকৃত ওই অভিযোগের প্রেক্ষিতে বিষয়টি মিমাংসার জন্য ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি রুহুল কুদ্দুস ও সাধারণ সম্পাদক বিধান বর্মনসহ গণ্যমান্য ব্যাক্তিদের উপস্থিতিতে দুপক্ষের লোকজন নিয়ে রবিবার পুটিমারী বাজারে শালিস বসেছিলো।
শালিসের একপর্যায়ে কুলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি রুহুল কুদ্দুস ও সাধারণ সম্পাদক বিধান বর্মনসহ সিনিয়র আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দদের সামনেই আকর্ষিক উত্তেজিত হয়ে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক অলোক কান্ত রায়কে মারপিট করে তপু মন্ডল। এঘটনার পর তাৎক্ষনিকভাবে দেবহাটা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সুমনের নির্দেশে কুলিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি শাহারুল ইসলাম বকুল ও সাধারণ সম্পাদক মহরম হোসেন  এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে অভিযুক্ত তপু মন্ডলকে ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে বহিষ্কার করেন।

এই সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

%d bloggers like this: