দ্বিতীয়বার প্রেসিডেন্ট হওয়া নিয়ে শঙ্কায় ট্রাম্প

দ্বিতীয়বার প্রেসিডেন্ট হওয়া নিয়ে শঙ্কায় ট্রাম্প

বিশ্বব্যাপী আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়া মহামারি করোনাভাইরাসে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে এখনো পর্যন্ত ১০ লক্ষেরও অধিক মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন এবং ৬০ হাজারের বেশি মৃত্যুবরণ করেছেন। এ মহামারি প্রতিরোধে যথাযথ পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থতার অভিযোগ রয়েছে মার্কিন প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে।

তবে বরাবরই এর দোষ অন্যের ঘাড়ে চাপিয়েছেন ট্রাম্প। তার দাবি, আসন্ন মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তার পুনর্র্নির্বাচিত হওয়া ঠেকাতে চায় চীন। আর একারণেই সুকৌশলে যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসের বিস্তার ঘটিয়েছে চীন।

বুধবার মার্কিন গণমাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেছেন ট্রাম্প। তিনি বলেন, করোনাভাইরাস সংক্রমণের বিষয়ে বিশ্ববাসীকে আরও আগেই জানানো উচিত ছিল চীনের। আর এই সংকটের কারণে অনেক বড় ফল ভোগ করতে হবে বেইজিংকে।

তবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প চীনের বিরুদ্ধে কি ধরণের ব্যবস্থা নেবেন তা পরিষ্কার করে বলেন নি।

আসছে নভেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। এ লড়াইয়ে দ্বিতীয়বার জয়ী হওয়ার পথে ট্রাম্পের ‘তুরুপের তাস’ ছিল অর্থনৈতিক উন্নয়নের ভাষ্য। তবে করোনা মহামারিতে মাত্র কয়েক মাসেই ধসের মুখে যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতি। ফলে পুনরায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়া নিয়ে শঙ্কায় রয়েছেন ট্রাম্প।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট চীনের ওপর অভিযোগ আরোপ করে বলেন, এই দৌড়ে আমাকে হারাতে চীন যে কোনো কিছুই করতে পারে। ডেমোক্রেট নেতা জো বাইডেনকে জয়ী করতেই উঠেপড়ে লেগেছে বেইজিং। তবে আমার বিশ্বাস এই দেশের জনগণ বুদ্ধিমান। তারা কোনো অযোগ্য ব্যক্তিকে ক্ষমতায় বসাবে না।

বেশ কয়েকটি মার্কিন সংবাদমাধ্যম জানায়, বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গরাজ্যে হারতে চলেছেন ট্রাম্প। এমন জরিপের বিষয়ে গত শুক্রবার রাজনৈতিক উপদেষ্টাদের সঙ্গে জরুরি বৈঠক করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। এদিন উপদেষ্টাদের সঙ্গে রীতিমতো ক্ষোভে ফেটে পড়েন তিনি।

গণমাধ্যমের তথ্যমতে, আগামী নির্বাচনে ফ্লোরিডা, উইসকনসিন ও অ্যারিজোনায় ট্রাম্প হারতে পারেন, এমন সন্দেহ রয়েছে তার অনেক সহযোগীর মনেই। এরই মধ্যে মিশিগানে জয়ের আশা ছেড়ে দিয়েছে রিপাবলিকানদের নির্বাচনী টিম।

সংবাদসূত্র : রয়টার্স, বিবিসি

এই সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

%d bloggers like this: