তালার কানাইদিয়ায় ঘুমন্ত যুবকের উপর রহস্যজনক এসিড নিক্ষেপ

তালার কানাইদিয়ায় ঘুমন্ত যুবকের উপর রহস্যজনক এসিড নিক্ষেপ

তালা প্রতিনিধি:: সাতক্ষীরার তালায় বন্ধ ঘরে ঘুমন্ত অবস্থায় আল আমিন গাজী (৩২) নামে এক যুবককে কে বা কারা এসিড নিক্ষেপ করে ঝলসে দিয়েছে। রবিবার রাত ১ টার দিকে ঘটনাটি ঘটেছে তালা উপজেলার জালালপুরের কানাইদিয়া গ্রামে। এসময় আলা-আমিন তার স্ত্রী আশা ওরফে হাফসা বেগমের সাথে ঘুমিয়ে ছিলেন। রাতেই পরিবারের সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে সাতক্ষীরা ও পরে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়েছে। ভেতর থেকে বন্ধ ঘরের কোথাও ফাঁকা না থাকায় ঘটনাটি গভীর রহস্যজনক বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এলাকাবাসী ও পারিবারিক সূত্র জানায়, উপজেলার কানাইদিয়া গ্রামের সাত্তার গাজীর ছেলে আল-আমিন গাজী পেশায় একজন রং মিস্ত্রী হিসেবে দীর্ঘ দিন যাবৎ ঢাকায় অবস্থান করছিলেন। অন্যদিকে তার স্ত্রী আশা ওরফে হাফসা বেগম প্রায় ৩ বছর যাবৎ সৌদি আরবে গৃহকর্মী হিসেবে প্রবাসী ছিলেন। গত বছরের ডিসেম্বরের দিকে আয়েশা দেশে ফিরে স্বামীর সাথে একমাত্র ছেলে মুজাহিদ (৮) সহ ঢাকাতেই অবস্থান করছিলেন। পরিবারের সাথে ঈদ করতেই বুধবার তারা ঢাকা থেকে গ্রামের বাড়ি কানাইদিয়ায় আসেন এবং রবিবার দিবাগত রাতে এসিড সন্ত্রাসের শিকার হন।

এদিকে বন্ধ ঘরের মধ্যে স্বস্ত্রীক একই বিছানায় ঘুমিয়ে থাকলেও শুধুমাত্র স্বামীর এসিড দগ্ধ হওয়ার বিষয়টি নিয়ে রীতিমত তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে এলাকাবাসীর পাশাপাশি আক্রান্তের পরিবাররেও। পারিবারিক সূত্র জানায়, আল-আমিন তার মুখ ও বুকে মারাত্মকভাবে এসিডদগ্ধ হন। ঘটনার পর থেকে তার স্ত্রী আশা স্বামীর সাথেই রয়েছেন। ঘটনার খবর পেয়ে তালা থানার ওসি (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ ও এসআই প্রীতিশ রায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

ধারণা করা হচ্ছে, আলা-আমিনের এসিড নিক্ষেপের পেছনে স্ত্রী আশা কোন না কোনভাবে জড়িত থাকতে পারেন। তা নাহলে বন্ধ ঘরের কোথাও কোন ফাঁকা না থাকা স্বত্বেও এভাবে এসিড দগ্ধ হওয়ার ঘটনা গভীর ষড়যন্ত্রের অংশ বলেই ধারনা এলাকাবাসীর। একই বিছানায় দু’জন ঘুমিয়ে থাকলেও শুধু আল-আমিন এসিডে দগ্ধ হলেন কীভাবে ? ঘটনার পর থেকে এমন নানা প্রশ্ন এলাকাবাসীর পাশাপাশি খোদ পরিবারের সদস্যদের মধ্যে বার বার ঘুর পাক খাচ্ছে।

সর্বশেষ এ ঘটনায় কোথাও কোন মামলা হয়েছে কিনা তা জানা জায়নি।

এই সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন