দেবহাটায় সরকারী পাঁকা কসাইখানা ভেঙ্গে ফেলার অভিযোগ

দেবহাটায় সরকারী পাঁকা কসাইখানা ভেঙ্গে ফেলার অভিযোগ

দেবহাটা প্রতিনিধি: দেবহাটার গাজীরহাটে দিনে-দুপুরে সরকারী পাঁকা গরু জবাইয়ের কসাইখানা ভেঙ্গে ফেলার অভিযোগ উঠেছে! এঘটনায় প্রতিবাদ করায় বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদককে প্রকাশ্যে বিভিন্ন গালিগালাজ সহ হুমকি দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। গাজীরহাট বাজার কমিটির সাধারন সম্পাদক ইমান আলী জানান, গাজীরহাট মৎস্য সেডের কসাই খানার পাশে^ স্থানীয় প্রভাবশালী আবুল কাশেমের পুত্র নওয়াপাড়া ২নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি একাধীক নাশকতা মামলার আসামী আহছান উল্লাহ ও তার ভাই খলিল নিজেদের স্বার্থ হাসিল করতে গাজীরহাট বাজারের গরু কাটার সরকারী পাঁকা কসাইখানা ভেঙ্গে ফেলার ষড়যন্ত্র করে। মঙ্গলবার সকালে আহছান উল্লাহ ও খলিল তাদের জমির পানি সরাতে ড্রেন তৈরি করার জন্য ব্যক্তিগত প্রভাাব খাটিয়ে কাউকে না জানিয়ে সরকারী পাঁকা কসাইখানা ভিতরের অংশ ভেঙ্গে গভীর করে। তারা কয়েকজন শ্রমিক নিয়ে তড়িঘড়ি করে ড্রেন তৈরি কাজ সম্পন্ন করার চেষ্টা করতে থাকে। এসময় আমি বিষয়টি জানতে পেরে কাউকে না জানিয়ে কসাইখানা ভাঙ্গার বিষয়ে জানতে চাইলে আবুল কাশেম নিজে এবং তার দুই পুত্র আহছান উল্লাহ ও খলিল আমার উপর চড়াও হয়। তারা আমাকে বিভিন্ন গালিগালাজ ও মারপিটের হুমকি দেয়। এবিষয়ে আহছান উল্লাহর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, সেডের পাশ^বর্তী আমাদের ফসলি জমির পানি সরানোর জন্য আমরা কসাইখানা ভেঙ্গেছি। ড্রেন তৈরি শেষ হলে আবার সংস্কার করে দেব। এব্যাপারে নওয়পাড়া ইউপি চেয়ারম্যান ও বাজার কমিটির সভাপতি মুজিবর রহমান বলেন, বিষয়টি শুনেছি। বৃহস্পতিবার সরেজমিনে যেয়ে ঘটনার বিষয়ে ব্যবস্থা নেব।

এই সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন