ভোমরা পুরাতন হাটখোলা সার্বজনীন পূজা মন্দিরের জমি দখলের চেষ্টা

ভোমরা পুরাতন হাটখোলা সার্বজনীন পূজা মন্দিরের জমি দখলের চেষ্টা

নিজস্ব প্রতিনিধি: সাতক্ষীরা সদরের ভোমরা পুরাতন হাটখোলা সার্বজনীন পূজা মন্দিরের জমি জোর পূর্বক দখল করার চেষ্টা করছে একটি প্রভাবশালী মহল।
ভোমরা পুরাতন হাটখোলা সার্বজনীন পূজা মন্দিরের সভাপতি বলেন, ১৯৩০ সাল থেকে মন্দির চলছে। সেই থেকে ওই মন্দিরে দূর্গাপূজা, কালীপূজা, নামযজ্ঞসহ বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠান পালিত হচ্ছে। ১৯৯০ সালে লক্ষীদাঁড়ী মৌজার ২২৬৫ ও ২২৬৭ দাগের ৬২ শতক জমি মন্দিরের নামে রেকর্ড হয়। এরপর প্রিণ্ট পর্চায় দেখা যায় সেই জমি সরকারের নামে রেকর্ড হয়েছে। তবে প্রিণ্ট পর্চায় মন্দির ও বাঁশঝাড় উল্লেখ আছে। এরপর ওই রেকর্ড কাটার জন্য মন্দির কর্তৃপক্ষ ল্যান্ড সার্ভে মামলা করেছে। মামলাটি এখনও চলমান আছে।
এদিকে মামলা চলমান থাকাবস্থায় মন্দিরের পিছনে ২২৬৭ দাগের প্রায় সাত শতক জমিতে গর্ত ছিল। কয়েক মাস আগে ওই গর্তের কিছু অংশ ভরাট করে টিন দিয়ে একটি দোকান ঘর নির্মাণ করে এলাকার জবেদ গাজী, আসকার গাজী ও রব্বানী গাজী। গত কয়েকদিন আগে সম্পূর্ণ ওই গর্ত ভরাট করে একটি প্রভাবশালী মহল সম্পূর্ণ ওই জমিটি দখল করার চেষ্টা করছে। এছাড়া মন্দিরের পশ্চিমপাশে ২২৬৫ দাগের ২৭ শতক জমিতে বাঁশঝাড় আছে। ওই বাঁশঝাড়সহ ওই জমি দখল করার জন্যও ওই মহলটি পায়তারা শুরু করেছে। ওই জমি নিয়ে একাধিকবার সালিশ হয়েছে। সালিশের বিচারকরা ওই জমি মন্দির পাবে বলে রায় দিলেও তারা তা মানছেন না। তারা ওই জমি দখলের জন্য মন্দির কর্তৃপক্ষকে বিভিন্নভাবে হুমকি ধামকি দিচ্ছেন।
ভোমরা ইউনিয়ন  সহকারী ভূমি কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম বলেন, মন্দিরের পিছনের ওই জমি দখল করার জন্য ভরাট করছে এমন সংবাদ জানতে পেরে ওই গর্ত ভরাট বন্ধ করা হয়েছে। সরকারী জমি কাউকে অবৈধভাবে ভোগদখল করতে দেওয়া হবে না।
এই সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন