‘ভুল’ প্রশ্ন আর ‘অশোভন আচরণে’ বিপাকে পরীক্ষার্থীরা

‘ভুল’ প্রশ্ন আর ‘অশোভন আচরণে’ বিপাকে পরীক্ষার্থীরা

সাতক্ষীরা টুডে ডেস্ক: ‘ভুল’ প্রশ্ন আর পরীক্ষকদের ‘অশোভন আচরণে’ বিপাকে পড়েছে মোহাম্মদপুর প্রিপারেটরি স্কুল এন্ড কলেজের ইংরেজি ভার্সনের এসএসসি পরীক্ষার্থীরা।

বেশ কয়েকটি পরীক্ষার প্রশ্ন ‘ভুল ও অর্ধছাপা’ প্রশ্ন নিয়ে পড়তে হয়েছে তাদেরকে বিড়ম্বনায়। ফলে ‘ভালো’ প্রস্তুতি থাকা সত্ত্বেও পরীক্ষা শেষে ‘হতাশ’ হতে হয়েছে পরীক্ষার্থীদের।

লালমাটিয়া উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে তারা পরীক্ষা দিচ্ছে।

মোহাম্মদপুর প্রিপারেটরি স্কুল এন্ড কলেজের কয়েকজন এসএসসি পরীক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের সাথে কথা বলে এসব তথ্য জানা যায়।

অভিযোগে জানা যায়, গত ৯ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত গণিত পরীক্ষার ইংরেজি ভার্সনের প্রশ্ন ‘ভুল ও অর্ধছাপা’ অবস্থায় ছাত্রদেরকে দেওয়া হয়।

‘ভুল’ প্রশ্ন নিয়ে বিপাকে পড়লেও এসময় কেন্দ্র পরিদর্শকরা পরীক্ষার্থীদের সহযোগিতা করা বাদ দিয়ে উল্টো ‘খারাপ’ আচরণ করেন। অর্ধছাপার কারণে পরে তাদেরকে বাংলা প্রশ্ন দেওয়া হলেও অতিরিক্ত কোনো সময় দেওয়া হয়নি।

অন্যদিকে, ইংরেজি ভার্সনের শিক্ষার্থী হওয়ার কারণে অনেকে আবার বাংলা ভালোভাবে বুঝতে না পারায় ১৫-২০ নম্বরের উত্তর দিতে পারেনি বলে জানা গেছে।

একইভাবে গত ১১ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত ধর্ম পরীক্ষায় ‘ভুল’ প্রশ্ন সরবরাহ করা হয়। সেখানে দেখা যায়, বাংলা এমসিকিউ ঠিক থাকলেও ইংরেজি ভার্সনের প্রশ্নে ইংরেজি অনুবাদগুলো ‘ভুল’ ছিল।

ইংরেজি ভার্সনের এক পরীক্ষার্থী অভিযোগ করে  বলে, ‘বাংলা বই থেকে ইংরেজি ভার্সনের প্রশ্ন করা হচ্ছে। অথচ সেই প্রশ্নগুলো ইংরেজি মিডিয়ামের বইতে নেই। তাহলে আমরা কিভাবে সেই প্রশ্নগুলোর উত্তর দিব?’

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এসএসসি পরীক্ষার্থীর এক অভিভাবক বলেন, প্রতিনিয়ত পরীক্ষায় প্রশ্ন ভুল হচ্ছে। অনেক ক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে বোর্ড থেকে প্রশ্ন ভুল করছে। আবার কিছু সমস্যা স্থানীয় পরীক্ষা কেন্দ্রগুলো থেকে সৃষ্টি হচ্ছে। এখানে যদি অশোভন আচরণ না করে শিক্ষার্থীদের সহযোগিতা করতো তাহলে সমস্যা অনেক ক্ষেত্রে সমাধান করা যেত।

আরেক পরীক্ষার্থীর অভিভাবক ইঞ্জিনিয়ার সাবের আহমেদ বলেন, ‘অনেকে সুন্দর প্রস্তুতি থাকা সত্ত্বেও প্রশ্ন ভুলের কারণে কাঙ্ক্ষিত পরীক্ষা দিতে পারেনি আমার সন্তান।’

এদিকে, গণিত পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ভুল সরবরাহ ও পরীক্ষার্থীদের সাথে খারাপ আচরণ করায় অভিভাবকদের পক্ষ থেকে স্মারকলিপি দেওয়া হয়েছে।

মোহাম্মদপুর প্রিপারেটরি স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষের কাছে পাঠানো স্মারকলিপিতে বলা হয়- ‘আমাদের সন্তানরা এবছর লালমাটিয়া উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের থেকে পরীক্ষা দিচ্ছে। কিন্তু অত্যন্ত দুঃখজনক বিষয় হচ্ছে গত ৯ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত অংক পরীক্ষার ইংরেজি ভার্সনের প্রশ্ন ভুল ও অর্ধছাপা অবস্থায় ছাত্রদেরকে দেওয়া হয়। এছাড়া কক্ষ পরিদর্শকেরা ছাত্রদের সাথে অশোভন আচরণ করেন। এতে ছাত্ররা মানসিকভাবে দুর্বল হয়ে পড়ে। পরবর্তীতে বাংলা ভার্সনের প্রশ্ন থেকে সমাধান দেওয়া হলেও অতিরিক্ত কোনো সময় দেওয়া হয়নি। ফলে যথেষ্ট প্রস্তুতি থাকা সত্ত্বেও ছাত্ররা যথাযথভাবে পরীক্ষা দিতে পারেনি। যা ওদের কাঙ্ক্ষিত ফলাফল অর্জনের পথে যথেষ্ট দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।’

এবিষয়ে ছাত্রদের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য অভিভাবকদের পক্ষ থেকে অনুরোধ করা হয়।

মোহাম্মদপুর প্রিপারেটরি স্কুল ও কলেজ অধ্যক্ষ মো. বেলায়েত হুসেন বলেন, অভিভাবকদের পক্ষ থেকে  একটি স্মারকলিপি পেয়েছি। এটা ইংরেজি ভার্সনের ভাইস প্রিন্সিপাল দিলরুবা বেগম বলতে পারবেন।

এবিষয়ে ভাইস প্রিন্সিপাল দিলরুবা বেগম  বলেন, প্রশ্নভুল এগুলো বোর্ডের দায়, এখানে আমাদের কিছু করার নেই। আর শিক্ষার্থীদের সাথে খারাপ আচরণ এটাও তারা দেখবে। আমাদের এখানে কোনো রকম দায়ভার নেই।

এই সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন