সুন্দরবনের সম্পদ রক্ষায় খুলনা জেলা পুলিশের বিশেষ অভিযান শুরু

সুন্দরবনের সম্পদ রক্ষায় খুলনা জেলা পুলিশের বিশেষ অভিযান শুরু

শাহজাহান সিরাজ কয়রা (খুলনা) প্রতিনিধি ঃ সুন্দরবনের বনদস্যু দমন, নদী ও খালে বিষ দিয়ে মাছ আহরণ করা এবং বাঘ, হরিন শিকার প্রতিরোধে বিশেষ অভিযান শুরু করেছে খুলনা জেলা পুলিশ। গত রবিবার বেলা ১০ টায় কয়রা উপজেলার কাটকাটা লঞ্চঘাট থেকে এ অভিযান শুরু হয়। খুলনা জেলা পুলিশ সুপার এস এম শফিউল্যাহ (বিপিএম) এর সার্বিক তত্ববধানে অভিযানের নেতৃত্বে রয়েছেন খুলনা জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জিএম আবুল কালাম আজাদ ও কয়রা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ রবিউল হোসেন। সুন্দরবন কেন্দ্রীক বনদস্যু দমন ও বিষ দস্যুতা বন্ধ না হওয়া পর্যন্ত বিশেষ এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানিয়েছে পুলিশ। খুলনা জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জিএম আবুল কালাম আজাদ বলেন, সুন্দরবনকে আমরা সেই রকম একটি সুন্দরবন রূপান্তরিত করবো, যেটি অর্থনৈতিক কর্মকান্ড থেকে শুরু করে সমস্ত কর্মকান্ডের কেন্দ্র বিন্দু হবে। সেটি করতে গেলে শুধু সুন্দরবনে বিষ প্রয়োগকারীদের বিরুদ্ধে নয়, যারা বনদস্যুতা করে, বাঘ-হরিণ শিকার করে তাদের প্রতি আমাদের কঠিন নিষ্ঠুরতা থাকবে। বন অপরাধ যারা করে তাদের সবার প্রতি আমাদের একটাই কথা থাকবে তোমরা ভালোর পথে ফিরে আসো, নয়তো তোমাদের কষ্ট ভোগ করতে হবে। এছাড়া আইজিপি ও ডিআইজি মহোদয়ও চাইছেন সুন্দরবনকে আমরা বসবাসের উপযোগী করে তুলি। পৃথিবীর সবচেয়ে বড় ম্যানগ্রোভ ফরেস্ট সুন্দরবনের প্রধান আকর্ষণ রয়েল বেঙ্গল টাইগার, চিত্রা হরিণ, সুন্দরী গাছ। শুধু গাছ তা নয়, ঘূর্ণিঝড়- সিডর, আইলা, ফনি, বুলবুল ও আম্পান সহ জলোচ্ছাসের মতো সকল প্রাকৃতিক দূর্যোগ থেকেই সুন্দরবন আমাদের মায়ের মত আগলে রাখে এই বন, তাই এ বনটাকে সুরক্ষা দেয়াই আমাদের প্রধান উদ্যেশ্য। কয়রা থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ রবিউল হোসেন বলেন, সুন্দরবনে পুলিশের বিশেষ অভিযানে কিছু হরিণ ধরার ফাঁদ ও সরঞ্জাম সহ বিষ দিয়ে মাছ ধরার আলামত উদ্ধার করা হয়েছে। সুন্দরবনের সম্পদ রক্ষায় আমাদের এ অভিযান চলমান থাকবে বলেও তিনি জানান।

এই সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

%d bloggers like this: