শনিবার, ২৪ জুলাই ২০২১, ০৫:১৬ পূর্বাহ্ন

সাতক্ষীরা বাইপাস সড়কের কালভার্ট এখন মরণ ফাঁদে পরিণত

বিশেষ প্রতিনিধি / ২০২
প্রকাশের সময় : রবিবার, ১১ জুলাই, ২০২১

সাতক্ষীরা সদরের বিনেরপোতা টু মেডিকেল কলেজ মোড় সংলগ্ন বাইপাস সড়কের অধিকাংশ কালভার্টগুলো মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। সরেজমিনে দেখা যায়, এই বাইপাস সড়কের অধিকাংশ কালভার্ট ও রাস্তা অসমতল, উঁচু-নিচু হওয়ায় নিয়মিত দুর্ঘটনায় আক্রান্ত হচ্ছে সড়কে চলাচলরত ট্রাক, ইঞ্জিন ভ্যান ও মোটর বাইক।

উল্লেখ্য যে, ১৭৬ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত ১২ দশমিক ৩০ কিলোমিটার এই সড়কটির সংযোগ সাতক্ষীরা খুলনা সড়কের বিনেরপোতা থেকে এসে মিশেছে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজের সংলগ্ন সাতক্ষীরা-কালিগঞ্জ সড়কে। সাতক্ষীরা শহরের যানজট নিরসনে বাইপাস সড়ক নির্মাণের দাবি উঠতে থাকে ৯০-এর দশকের প্রথম দিকে। বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটি এবং বিভিন্ন সময়ে সাতক্ষীরার উন্নয়নে গঠিত বিভিন্ন নামের সংগঠন এই দাবি জানাতে থাকে। ১৯৯৬ সালে ভোমরা স্থলবন্দর চালু হওয়ার পর বাইপাস নির্মাণের এই দাবি আরও জোরালো হয়ে ওঠে। এর প্রেক্ষিতে ২০১০ সালের ২৩ জুলাই শ্যামনগরে এক জনসভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাতক্ষীরায় বাইপাস সড়ক নির্মাণের ঘোষণা দেন। এর কিছু দিন পর জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদ একনেকে ভোমরা স্থলবন্দর সড়ক হতে বিনেরপোতা পর্যন্ত ২২ দশমিক ৩৫ কিলোমিটার দৈর্ঘ্য বাইপাস সড়কের জন্য ১১৬ কোটি টাকার একটি প্রকল্প অনুমোদন করা হয়। কিন্তু পরবর্তীতে সেটি সংশোধন করা হয় এবং ১৭৬ কোটি টাকা ব্যয়ে সাতক্ষীরা মেডিকেোল কলেজের সামনে থেকে লাবসা পলিটেনিক ইনস্টিটিউট সংলগ্ন সড়ক হয়ে বিনেরপোতা বিসিক শিল্প নগরী পর্যন্ত ১২ দশমিক ৩০ কিলোমিটার বাইপাস সড়ক নির্মাণের প্রকল্প অনুমোদন করা হয়। এই বাইপাস সড়কে মোট ৩৬টি কালভার্ট নির্মাণের প্রায় অধিকাংশই রাস্তা ছাড়া উঁচু-নিচু ও ফাটল ধরায় কালভার্ট গুলো ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠছে। সড়কে চলাচলকারীরা অচিরেই এবিষয়টির দিকে নজর রাখার আহবান জানিয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।


এই শ্রেণীর আরো সংবাদ