সাতক্ষীরায় করোনা প্রাদুর্ভাব রোধে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালনে আইপিএ সংস্থা

সাতক্ষীরায় করোনা প্রাদুর্ভাব রোধে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালনে আইপিএ সংস্থা

রাজু রায়হানঃ বাংলাদেশের তৃণমূল পর্যায়ে মহামারি Covid 19 এর ভয়াবহতা সম্পর্কে  জনগণকে সচেতন করার লক্ষে মহাপরিকল্পনার অংশ হিসেবে স্বেচ্ছাসেবী মূলক কাজ করছে আন্তজার্তিক সংস্থা ইননোনেশনস ফর প্রোভার্টি একশন (আইপিএ)। এটি নিউইয়র্ক ভিত্তিক অলাভজনক গবেষণা প্রতিষ্ঠান।


বিশ্ব যখন মহামারি করোনা ভাইরাসে প্রায় থমকে দাঁড়িয়েছে ঠিক তখনই বিশ্বব্যাপী সরকারের পাশাপাশি বিভিন্ন আন্তজার্তিক সংগঠন ও সংস্থা করোনাভাইরাসে ভয়াবহতা কমিয়ে আনার লক্ষে কাজ শুরু করে। বাংলাদেশে তৃণমূল পর্যায়ে জনগণকে মাস্ক এর সঠিক ব্যবহারের মধ্যদিয়ে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব রোধে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে আন্তজার্তিক সংস্থা (আইপিএ)। প্রাথমিকভাবে আইপিএ মহল্লা পর্যায়ে বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে করোনার লক্ষণ পর্যালোচন করে।


দ্বিতীয় ধাপে মসজিদ, গ্রামের প্রবেশের প্রধান পথ, বাজার,চায়ের দোকান,রেস্টুরেন্ট সহ বিভিন্ন জায়গায় বিনামূল্যে মাস্ক বিতরণ ও পরার ক্ষেত্রে সচেতনতা এবং অভ্যাসে পরিনত করতে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে। এক্ষেত্রে এলাকার জনপ্রতিনিধি ও শিক্ষকদের সচেতনতা তৈরির ক্ষেত্রে সংস্থাটি সহযোগীতা নেয়।
কাজটি সঠিকভাবে প্রচালিত হচ্ছে কিনা সেটা গোপনে পর্যাবেক্ষণ করা হচ্ছে। একই সাথে যে এলাকায় সতেচনতা মূলক কাজ করেছে সে এলাকায় রক্তের নমুনা সংগ্রহ করে সংস্থাটি।


এই সংস্থাটি সারা বাংলাদেশের ৪১ টি জেলার ৬০০ টি গ্রামের এই কার্যক্রম পরিচালনা করছে। সংস্থাটি সাতক্ষীরা জেলার ৪টি উপজেলায় একযোগে কাজ করছে। এর মধ্যে কলারোয়া উপজেলায় ৬টি গ্রামে সুপারভাইজার মনিরুল ইসলাম, সুপারভাইজার কাজী আতিকুর নেতৃত্বে সার্ভিলেন্স অফিসার ইসলামুল হক সবুজ, সার্ভিলেন্স অফিসার  এস কে আরশাদুল , হারুনুজ্জামান হারুন , রাসেল, রায়হান, মারুফ, মোবিন, নার্গিস খানম, নিলুফা, কামরুন নাহার সহ অনেকেই আইপিএর হয়ে কাজ করছেন।

Print Friendly, PDF & Email
এই সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন