সাতক্ষীরায় অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার, স্বামী আটক

সাতক্ষীরায় অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার, স্বামী আটক

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ সাতক্ষীরায় পারভিন আক্তার (২৪) নামে এক অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় পলাতক স্বামী আব্দুল খালেককে আটক করে পুলিশে দিয়েছে স্থানীয়রা। বুধবার (২৫ নভেম্বর) সকালে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার লাবসা ইউনিয়নের রাজনগর গ্রামের বাবার বাড়ি থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

স্থানীয় লাবসা ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আজিজুল ইসলাম জানান, রাজনগর গ্রামের আব্দুর রহিম সরদারের মেয়ে পারভিন আক্তারকে হত্যা করে ঝুলিয়ে দেয়া হয়েছে- এমন খবর শুনে সকালে সেখানে যেয়ে ঝুলন্ত মরদেহ দেখে পুলিশকে খবর দেই। পারভিনের পাঁচ বছর বয়সী কন্যা সন্তান আছে। নিহত পারভিনের স্বামী আব্দুল খালেক স্ত্রী সন্তান নিয়ে শ^শুর বাড়িতেই থাকতো। কিন্তু স্ত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধারের পর স্বামী খালেককে না পাওয়া গেলে স্থানীয়দের সন্দেহ হয়। পরে এলাকার মানুষ খালেকের খোঁজ শুরু করে এবং ভাটপাড়া এলাকা থেকে পলাতক অবস্থায় তাকে আটক করে পুলিশে দেয়।

নিহত পারভিনের ভাই তরিকুল ইসলাম বলেন, তার বোন পারভিনের সাথে ২০১৩ সালে ঝাউডাঙ্গা ইউনিয়নের হাজিপুর গ্রামের মৃত মোজাম কারিকরের ছেলে আব্দুল খালেকের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে নানাভাবেই তাকে নির্যাতন করতো খালেক। বিয়ের দেড়বছরের মাথায় তাদের একটি কন্যা সন্তান হয়। তারপরও নির্যাতন থামেনি। তরিকুল আরো জানান, পারভিন সাতমাসের গর্ভবতী ছিল। সকালে তার ঝুলন্ত মরদেহ নামানো হলে হাতে কাটার দাগ ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন দেখা যায়।

সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আসাদুজ্জামান বলেন, বুধবার দুপুরে পারভীন আক্তারের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহতের স্বামী আব্দুল খালেককে আটক করা হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
এই সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন