HEADLINE
সাতক্ষীরার পর এবার মাগুরার সিভিল সার্জনের বিরুদ্ধে জনবল নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ! কলারোয়ায় এক কৃষকের ঝু’ল’ন্ত লা’শ উ’দ্ধা’র কলারোয়ায় স্বামীর পুরুষা’ঙ্গ কে’টে দ্বিতীয় স্ত্রী’র আ’ত্ম’হ’ত্যা কলারোয়ায় স্বামীর পুরুষা’ঙ্গ কে’টে দ্বিতীয় স্ত্রী’র আ’ত্ম’হ’ত্যা বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তন : বর্তমান অবস্থা ও ভবিষ্যৎ ৫ দিন পর ভোমরায় আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম শুরু দেবহাটায় পাল্টাপাল্টি মারপিটে ইউপি চেয়ারম্যান ও আ’লীগ সভাপতি সহ আহত ৫ সাতক্ষীরা সীমান্তে নয়টি স্বর্ণের বার’সহ চোরাকারবারি আটক সাতক্ষীরায় চেতনানাশক স্প্রে করে দুই পরিবারের নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার লুট আশাশুনির কোপাত বাহিনীর প্রধান কারাগারে
মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১১:৩৯ পূর্বাহ্ন

সাতক্ষীরায় পানের বরজে শিয়াল মারার ফাঁদে চোরের মৃ’ত্যু

মোমিনুর রহমান সবুজ / ৩৪২
প্রকাশের সময় : সোমবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২৩

সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ইন্দিরা গ্রামের সরকারপাড়ার নিমাই পদ দাসের পানের বরজের পাশ থেকে এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার ১৮ সেপ্টেম্বর দুপুরে সাতক্ষীরা সদর থানা পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে। মৃত ব্যক্তির নাম মীর গোলাম মোস্তফা (৪৭)। তিনি সাতক্ষীরা সদরের আগরদাঁড়ি কারিকরপাড়ার মীর মোসলেম আলীর ছেলে। তবে ধারণা করা হচ্ছে পান চুরি করতে এসে পানের বরজে টানিয়ে রাখা শিয়াল মারার ফাঁদ বৈদ্যুতিক তারে জড়িয়ে এ ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, মৃত মীর গোলাম মোস্তফার গালে একটি গ্যাস লাইটার, হাতে দুটি নাইলনের ব্যাগ ও তিনটি পলিথিনের বস্তা ছিল। ঘাড়ের ডানদিকে ফোস্কা ছিল। ধারণা করা হচ্ছে পান চুরি করতে এসে বৈদ্যুতিক তারে জড়িয়ে তার মৃত্যু হয়েছে। তবে একটি সংঘবদ্ধ চোরচক্র বরজে নিয়মিত পান চুরি করায় হারু দাস নামের এক পানের বরজ মালিক তার তিনটি পানের বরজ বন্ধ করে দিয়েছে। একইভাবে নিমাই পদ দাসের বরজে নিয়মিত চুরি হতো। যে কারণে তারা চুরি প্রতিরোধে বৈদ্যুতিক তারের সাহায্যে বাল্ব জ্বালিয়ে রাখতেন।

পানের বরজ মালিক নিমাই পদ দাস জানান, তার বরজে প্রতি সপ্তাহে মঙ্গলবার ও বুধবার পান ভাঙা হয়। মঙ্গলবার পান ভাঙার জন্য তিনি সব ধরণের প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছিলেন। এমনকি পানের বরজে শিয়াল প্রতিরোধে বৈদ্যুতিক তারে বাল্ব ঝুলিয়ে রেখেছিলেন। রবিবার রাত ১০টার দিকে তিনি বরজে পাহারা দিতে যেয়ে এক ব্যক্তিকে তার বরজের পাশে মৃত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন।বিষয়টি তিনি তাৎক্ষণিক স্থানীয় লোকজনদের জানান। সোমবার দুপুরে স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় পুলিশ মৃতের পরিচয় জানতে পারে।

মৃতের ভাই মীর আব্দুল কাদের জানান, তার ভাই গোলাম মোস্তফা অন্যের জমি লীজ নিয়ে চাষাবাদ করে জীবন জীবিকা চালাতেন। তার ছেলে মুজাহিদ স্থানীয় একটি কলেজে পড়ে। মেয়ে বীথিকে বিয়ে দিয়েছে। এলাকায় কাজ না থাকায় কয়েক মাস যাবৎ সে শহরে বসবাস করে। সোমবার দুপুরে খবর পেয়ে তিনি লাশ দেখেতে আসেন। তার ভাইয়ের মৃত্যু স্বাভাব্কি নয় বলে জানান তিনি।

সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মহিদুল ইসলাম জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে পানের বরজে শিয়াল মারার জন্য টানিয়ে রাখা বৈদ্যুতিক তারে জড়িয়ে গোলাম মোস্তফার মৃত্যু হয়েছে। লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা করা হবে।


এই শ্রেণীর আরো সংবাদ