HEADLINE
সাতক্ষীরার পর এবার মাগুরার সিভিল সার্জনের বিরুদ্ধে জনবল নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ! কলারোয়ায় এক কৃষকের ঝু’ল’ন্ত লা’শ উ’দ্ধা’র কলারোয়ায় স্বামীর পুরুষা’ঙ্গ কে’টে দ্বিতীয় স্ত্রী’র আ’ত্ম’হ’ত্যা কলারোয়ায় স্বামীর পুরুষা’ঙ্গ কে’টে দ্বিতীয় স্ত্রী’র আ’ত্ম’হ’ত্যা বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তন : বর্তমান অবস্থা ও ভবিষ্যৎ ৫ দিন পর ভোমরায় আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম শুরু দেবহাটায় পাল্টাপাল্টি মারপিটে ইউপি চেয়ারম্যান ও আ’লীগ সভাপতি সহ আহত ৫ সাতক্ষীরা সীমান্তে নয়টি স্বর্ণের বার’সহ চোরাকারবারি আটক সাতক্ষীরায় চেতনানাশক স্প্রে করে দুই পরিবারের নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার লুট আশাশুনির কোপাত বাহিনীর প্রধান কারাগারে
মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:৪১ পূর্বাহ্ন

সপ্তাহের ব্যবধানে ঝাউডাঙ্গায় কাঁচা মরিচের দাম তিনগুণ

মোমিনুর রহমান সবুজ / ২৫৩
প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ২৭ জুন, ২০২৩

মোমিনুর রহমান সবুজ: কাল বাদে পরশু পবিত্র ঈদুল আজহা। ঈদকে সামনে রেখে কাঁচা মরিচের দাম বেড়ে লাগামহীন, দিশেহারা হচ্ছে গেছে সাধারণ মানুষ। এক সপ্তাহের ব্যবধানে দাম বৃদ্ধি পেয়ে তিনগুণ দামে বিক্রি হচ্ছে কাঁচা মরিচ। মঙ্গলবার ২৭ শে জুন সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ঝাউডাঙ্গা বাজারে কাঁচা মরিচ বিক্রি হচ্ছে ৩-৪শ টাকায়। বাজার নিয়ন্ত্রণে প্রশাসনের নেই কোন মনিটারিং।

এলাকাবাসী বলছে ঈদকে সামনে রেখে অসাধু ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেট করে এই চড়া মূল্য নির্ধারণ করেছে। ঝাউডাঙ্গা বাজার সহ পাশ্ববর্তী বল্লী, বাঁশদাহ ইউনিয়নের অঞ্চল গুলোতেও ৩-৪শ টাকায় কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে কাঁচা মরিচ। অনেকে বাধ্য হয়ে শুকনো মরিচ দিয়েই কাঁচা মরিচের চাহিদা পূরণ করছেন। ঝাউডাঙ্গা বাজারের সবজি বিক্রেতারা জানান, কাঁচামরিচের দাম পাইকারি বাজারেও বেড়েছে। তাই আমরা বেশি দামে বিক্রি করছি। আমদানি কম হওয়ায় দাম বেড়েছে। গত সপ্তাহে ৮০-১০০ টাকা কেজি দরে বিক্রয় করেছি। পাইকারি বাজারে দাম না কমলে আমাদের কিছু করার নেই। তবে সবজির দাম কিছুটা কমেছে।ঝাউডাঙ্গা বাজারের কাঁচা মরিচের পাইকারি আড়ৎদার মোস্তফা কালাম জানান, স্থানীয়ভাবে মরিচের আবাদ কম হওয়ায় এবং চাহিদা অনুযায়ী বাইরে থেকে আমদানি কম হওয়াতে কাঁচা মরিচের বাজার এতটা বেড়ে গেছে। দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে কাঁচা মরিচ আমদানি করে থাকি। তাছাড়া দেশে মরিচের সিজন শেষ পর্যায়ে। এ সময় এমনিতেই কাঁচা মরিচের দাম বেড়ে যায়। তবে মঙ্গলবার ২৭০ টাকা কেজি দরে কাঁচা মরিচ বিক্রয় করেছি। এদিকে খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে কাঁচা মরিচের বিপরীতে বেশির ভাগ মানুষ শুকনো গুড়া মরিচ রান্না-বান্নায় ব্যবহার করছেন। গত এক-দুই সপ্তাহ আগেই এখানকার হাট-বাজারে ৮০ থেকে ১০০ টাকা কেজিতে কাঁচা মরিচ বেচা-কেনা হয়েছে। গরীব অসহায় দিন মজুর ও স্বল্প আয়ের মানুষেরা হাট-বাজারে পচা আধা পচা বা উচ্ছিষ্ট কাঁচা মরিচ কম দামে পেয়ে কিনে ঘরে ফিরছেন তার বাস্তবতা মিলেছে। আগে যারা এক কেজি আধা কেজি কাঁচা মরিচ কিনতেন এখন তাদেরকে এক পোয়া আধা পোয়া কিনতে দেখা যাচ্ছে। কাঁচা মরিচের দাম অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে যাওয়ায় কষ্টে পড়েছে নিম্ন আয়ের হাজারো মানুষ। তাই সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের বাজার মনিটরিংয়ের ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য জোর দাবি জানিয়েছে ক্রেতারা।


এই শ্রেণীর আরো সংবাদ