বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ০৩:৫৫ পূর্বাহ্ন

শ্যামনগরে হরিন শিকারের ঘটনাকে কেন্দ্র করে ৭জন আহত

আব্দুল কাদের, শ্যামনগর / ২১৭
প্রকাশের সময় : বুধবার, ৭ জুলাই, ২০২১

সাতক্ষীরা জেলার শ্যামনগর উপজেলার মরাগাং এলাকায় হরিণ শিকারী জব্বার গাজী ৩ জুলাই শনিবার রাতে আটক করে কৈখালী স্টেশন কর্মকর্তা মোবারক হোসেন। এঘটনা কে কেন্দ্র করে ৬ জুলাই মঙ্গলবার সকালে কৈখালী স্টেশন কর্মকর্তা মোবারক হোসেন ও মরাগাং টহল ফাঁড়ির ওসি সাহাদাত হোসেন যৌথভাবে  তদন্তে যেয়ে আকবার গায়েন এর স্ত্রী নূরনাহার এর কাছে মাহমুদুল এর বাড়ি জানতে চায়লে বাড়ি দেখিয়ে দেয়। তদন্ত শেষে  চলে যাওয়ার পরে রাশেদ আলীর পুত্র আনারুল ও মুকুল সহ খবির এর পুত্র  ফিরোজ ও সবুজ, ইউনুছ গাজী পুত্র ইয়াছিন ও ইমরান সহ ১০ / ১২ জন হামলা চালিয়ে আকবর গায়েন এর স্ত্রী নূরনাহার, মৃত আব্দুল সরদার এর পুত্র আবুল কালাম দোলন ও হাসান সরদার, সালাম এর পুত্র রানা সরদার, ছফেদ আলীর পুত্র জামাল গাজী, আবুল কালাম এর পুত্র আতাউর সরদার, জাহাঙ্গীর এবং মাহমুদুর এর স্ত্রী রোজিনা, সাকাত সরদার এর পুত্র বাবু সরদার সহ উভায় পক্ষে ৭ জন আহত হত। আকবর গায়েন জানায়, আমার সালা দোলন ৯৯৯ নাম্বারে ফোন দিলে শ্যামনগর থানা পুলিশ যেয়ে আমাদের কে উদ্ধার করে শ্যামনগর উপজেলা হাসপাতালে নিয়ে আসে বলে জানান, আহত দোলন বলে আমার বন কে মারধর করেছে বলে আমাকে সংবাদ দেয় আমিও আমার ছেলে বোনকে আনতে গেলে আমাদের কে মারধর করে আটকে রাখে বাধ্য হয়ে যখন বাহিরে আসতে না পেরে ৯৯৯ নাং ফোন দেই। আহতরা শ্যামনগর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এ ঘটনায় শ্যামনগর থানায় মামলার প্রস্ততি চলছে বলে জানান, হাসপাতালের আহতরা। শ্যামনগর থানার অফিসার ইনচার্জ জানান ঘটনা স্থানে পুলিশ যেয়ে তাদের হাসপাতালে এনেছে চিকিৎসা চলছে। অভিযোগ পেলেই ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হবে।


এই শ্রেণীর আরো সংবাদ