HEADLINE
সাতক্ষীরা সীমান্তে অপরাধ দমনে বিজিবি ও বিএসএফ এর পতাকা বৈঠক ঝাউডাঙ্গা হাইস্কুল জামে মসজিদের ওযুখানা নির্মাণ কাজ উদ্বোধন শ্যামনগরে বিদ্যুৎস্পর্শে কৃষকের মৃত্যু কাশ্মিরি ও থাইআপেল কুল চাষে সফল সাতক্ষীরার মিলন ঝাউডাঙ্গা সড়কে বাস উল্টে ১০জন আহত ঝাউডাঙ্গায় জমকালো আয়োজনে শুরু হচ্ছে পৌষ সংক্রান্তি মেলা কালিগঞ্জে শীতার্ত মানুষের পাশে ”বিন্দু” মাদ্রাসা শিক্ষক শামসুজ্জামানের বিরুদ্ধে ফের ছাত্র বলাৎকারের অভিযোগ স্বামী বিবেকানন্দ দর্শন আমাদের মুক্তির পথ : সাতক্ষীরায় ১৬০তম জন্মবার্ষিকী উৎসবে আলোচকরা আ’লীগ নেতার বাড়িতে ডাকাতি, ১৫ লাখ টাকা ও ৩৪ ভরি স্বর্ণালঙ্কার লুট 
শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩, ০৬:০৯ অপরাহ্ন

শ্যামনগরে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে আবারো বালু উত্তোলন

শ্যামনগর প্রতিনিধি / ১৭৩
প্রকাশের সময় : রবিবার, ২৭ মার্চ, ২০২২

মহামান্য হাইকোটের ১৬৩৯২/২০১৭ নং রীট পিটিশন আদেশ অমান্য করে এক শ্রেণীর অসাধু ব্যক্তিরা স্থানীয় প্রশাসনকে ম্যানেজ করে সুন্দরবন সংলগ্ন ভাঙ্গন কবলিত এলাকা থেকে ড্রেঞ্জার মেশিন দিয়ে লোকালয়ে বোরিং করে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন অব্যহত রয়েছে। এমন অবস্থা চলতে থাকলে পরিবেশ ও জীব বৈচিত্র হুমকির মুখে পড়বে। বিস্তীন্ন এলাকা পরিবেশগত সংকটাপন্ন এলাকা হিসেবে গেজেটে ঘোষনা করা হয়েছে ৯ টি উপজেলা তার মধ্যে  শ্যামনগর উপজেলা রয়েছে। ১৪২৪ ও ১৪২৫ সালে শ্যামনগর উপজেলায় কোন বালু মহল ঘোষনা না হলেও স্থানীয় প্রশাসনকে ম্যানেজ করে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন চলছে।সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার মুন্সিগঞ্জ ইউনিয়নের চুনকুড়ি গ্রামের মুক্তিযুদ্ধা সড়ক নামের রাস্তাটিতে  অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করে ভরাটের কাজ করছেন কন্ট্রাক্টার মোঃ ফারুক মোল্যা । সরজমিনে দেখা যায় , মুন্সিগঞ্জ ইউনিয়নের চুনকুড়ি গ্রামের মুক্তিযুদ্ধা সড়কের পাশে মৎস্য ঘের থেকে ড্রেঞ্জার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন কাজ অব্যাহত রেখেছে।  সরকারী ভাবে ঘোষিত বালু মহল ছাড়া অন্য কোন জায়গা থেকে বালু উঠানো সম্পূর্ন নিষেধ থাকলেও তা না মেনে প্রকৃতি ধ্বংষ করে প্রতিনিয়িত উপজেলার বিভিন্ন স্থানে ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলন করে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে। বর্তমানে হরিনগর বাজার  সংলগ্ন চুনকুড়ি বালু উত্তোলন করছে। বিগত কয়েক দিন আগে তার অবৈধ বালু উত্তোলনের বিষয়ে মুন্সিগঞ্জ ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা আয়নুল হক কে জানালে সাথে সাথে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে অবৈধ বালু উত্তোলনের কাজ বন্ধ করে দেয়। দুই তিনদিন বালু উত্তোলন বন্দ থাকার পরেও কন্ট্রাক্টার মোঃ ফারুক মোল্যা আবারো বালু উত্তোলন শুরু করে।কোন ক্ষমতার বলে, ও কার ইন্দনে সে আবার অবৈধ্য বালু উত্তোলনের সাহস পেল এমনটি প্রশ্ন জনমনে।মুন্সিগঞ্জ ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা আয়নুল হকের কাছে মুঠোফোনে জানতে চাইলে বলেন আমি তো তাদের ড্রেঞ্জার মেশিন উঠায়ে দিয়েছিলাম আবার যদি তারা বালু উত্তোলন করে  তাহলে আমি কি করবো আমার তো জনবল কম আপনাদের যদি সমস্যা হয় তাহলে  জনবল নিয়ে  আমার সাথে চলেন আমি ড্রেঞ্জার মেশিন আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেব।শ্যামনগর উপজেলা সহকারী কমিশনার( ভূমি) মোঃ শহীদুল্লাহ মুঠো ফোনে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। এলাকা রক্ষায় ড্রেজার মেশিন দ্রুত বন্দ করার দাবি এবং অবৈধ্য বালু উত্তোলনকারীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য প্রশাসনের প্রতি আহবান জানান সচেতনমহল 


এই শ্রেণীর আরো সংবাদ