HEADLINE
ভারত থেকে চিকিৎসা নিয়ে দেশের ফেরার সময় ইমিগ্রেশনে পাসপোর্টযাত্রীর মৃত্যু দেবহাটা প্রেসক্লাবের বার্ষিক সভায় বর্তমান কমিটির মেয়াদ বর্ধিত; সদস্য অন্তর্ভূক্তির লক্ষ্যে উপ-কমিটি ঝাউডাঙ্গায় ৭১ সালের বালিয়াডাঙ্গা যুদ্ধের স্মৃতি চারণে আলোচনা সভা ৪র্থ বার বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত কলারোয়ার যুগিখালীর ইউপি সদস্য মফিজুল সাংবাদিক আজিজুল’র মৃত্যুতে সাতক্ষীরা সাংবাদিক সমিতির গভীর শোক সাতক্ষীরায় ধানক্ষেতে ইঁদুর মারা বিদ্যুতের ফাঁদে জড়িয়ে দু’জনের মৃত্যু বাংলাদেশ ভারত এর বন্ধুত্ব বিশ্বে রোল মডেলঃ নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী সাতক্ষীরায় গোপন বৈঠক কালে জামায়াতে ইসলামীর ১০ মহিলা নেতাকর্মী আটক ঐতিহ্যবাহী গুড় পুকুরের মেলা উপলক্ষে মাধবকাটি বলফিল্ড মাঠে উৎসবের আমেজ পরীক্ষার সময় পরিবহন চলা নিয়ে নিশ্চিত নয় জবির পরিবহন পুল
সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:৪৭ পূর্বাহ্ন

রাজগঞ্জে আমন ক্ষেত পরিচর্যায় ব্যস্ত কৃষক, প্রয়োজন ভারি বৃষ্টি

উত্তম চক্রবর্তী, মনিরামপুর / ৬২
প্রকাশের সময় : সোমবার, ৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১

শ্রাবণ যায় যায়, ভাদ্র আগমন, এসময় গরম ও রোদ্রের প্রচন্ড দাপট। এই গরমের মধ্যেই যশোরের রাজগঞ্জ অঞ্চলের কৃষকেরা আমন ক্ষেত পরিচর্যা নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন। কোমর বেঁধে আমন ক্ষেতে নেমেছেন নারী-পুরুষেরা। আমনের উঁচু ক্ষেতগুলোতে পানির অভাব থাকলেও নিচু ক্ষেতে পানির অভাব তেমনটা নেই। উঁচু ক্ষেতে সেচ মেশিন দিয়ে পানি দিতে হচ্ছে। সোমবার (০৬ সেপ্টেম্বর- ২০২১) বেলা সাড়ে ১১টায় সরেজমিনে এসব চিত্র দেখাগেছে। আরো দেখাগেছে- আমন ক্ষেতের চারা সতেজ হয়ে মাঠের পর মাঠ এখন সবুজের সমারোহ। যেদিকেই চোখ যায় শুধু সবুজের মিলনমেলা। আমনের মাঠ যেন সবুজে ঢাকা প্রকৃতি। চারদিকের এই নয়নাভিরাম দৃশ্য কৃষকের মনে দিচ্ছে এক ভিন্ন আমেজ। এখন প্রয়োজন ভারি ও মাঝারি বৃষ্টিপাত। বৃষ্টির পানি পেলে স্বস্তি পাবে আমন ধানের উঠতি চারাগুলো। তাতে ক্ষেতের সৌন্দর্য্য আরো বৃদ্ধি পাবে। আবহাওয়া অনুকুলে থাকলে এবার রাজগঞ্জ অঞ্চলে রোপা আমনের বাম্পার ফলন হবে বলে আশা করছেন কৃষকেরা। কৃষকেরা কেউ কেউ ক্ষেতের আগাছা পরিস্কার করছে, আবার কেউ কেউ রাসায়নিক সার, কীটনাশক স্প্রে করছে। উঁচু ক্ষেতগুলোতে পানি না থাকায় মাঠ ফেটে গেছে। একারণে কৃষকেরা কিছুটা দুশ্চিন্তায় রয়েছেন। উঁচু ক্ষেতের মালিকরা সেচের পানি দিয়ে আমন ক্ষেত ভিজায়ে রাখছেন। বৃষ্টি হলেই কৃষকের পানির চিন্তা অনেকটা কেটে যাবে। রাজগঞ্জের ঝাঁপা ইউনিয়নের হানুয়ার গ্রামের কৃষক রমজান আলী বলেন- আমন ক্ষেতে পানি নেই, মাঠ ফেটে চৌচির। যে কারণে সেচ দিতে হচ্ছে। তবে বৃষ্টি হলেই পানির সমস্যা কেটে যেতো। মশ্বিমনগর ইউনিয়নের কাঁঠালতলা গ্রামের আরেক কৃষক লিয়াকত আলী বলেন- পানির সমস্যা একটু আছে। নিচু আমনের ক্ষেতে এখনো কিছুটা পানি আছে। তাতে চারা গাছগুলো এখন বেশ সতেজ আছে। এখন পরিচর্যা নিয়ে ব্যস্ত আছি। চালুয়াহাটি ইউনিয়ন উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা এসএম মারুফুল হক বলেন- প্রত্যেক বছর আমন মৌসুমে কৃষকদের যাবতীয় পরামর্শ ও সেবা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর থেকে প্রদান করা হয়। এ বছরও দেয়া হচ্ছে। সবকিছু ঠিক থাকলে লক্ষ্যমাত্রার অতিরিক্ত ধান উৎপাদন হবে। 


এই শ্রেণীর আরো সংবাদ