রবিবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২২, ০২:৩৩ পূর্বাহ্ন

মোটরসাইকেল কিনে না দেওয়ায় মা-বাবা’কে ঘুমের ঔষধ খাওয়ালো ছেলে!

নিজস্ব প্রতিবেদক / ৪৯৩
প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১

মোটরসাইকেল কিনে না দেওয়ায় মা-বাবা’কে ঘুমের ঔষধ খাইয়ে অচেতন করে রাখলেন ছেলে। বৃহস্পতিবার রাত ১০ টার সময় সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ফিংড়ী ইউনিয়নের গাভা গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে।

জানা গেছে, গাভা গ্রামের মহাদেব দাশের ছেলে মৃনাল কুমার দাশ(২০) মা-বাবার নিকট থেকে মোটরসাইকেল দাবি করে আসছে প্রায় বছর খানেক ধরে। কিন্তু মা-বাবা মোটরসাইকেল না দিয়ে তালবাহানা করতে থাকায় ছেলে ধৈর্য ধরতে না পেরে বৃহস্পতিবার রাত ১০ টার দিকে রান্না করা তরকারির সাথে ঘুমের ঔষধ মিশিয়ে রাখলে ঘুমের ঔষধ মিশানো তরকারি মৃনাল দাশের বাবা মহাদেব সরদার ও মা বাসন্তি রানি খাওয়ার পর অচেতন হয়ে পড়তে থাকা অবস্হায় মা-বাবার সন্দেহ হয় ছেলের উপর। এ নিয়ে ছেলের সাথে মা-বাবার ঝগড়াও হয়। এমনকি ছেলে মৃনাল দাশ মা-বাবাকে মারধর ও করে। রাতে মহাদেব সরদার ও বাসন্তি রানি দু’জনই ঘুমের ঔষধ মিশানো তরকারি খেয়ে ঝগড়া শেষে ঘুমের জন্য একপর্যায়ে অচেতন হয়ে পড়ে। শুক্রবার সকাল ৮টার সময় প্রতিবেশি লোকজন দেখতে পায় মহাদেব সরদার ও বাসন্তি রানি অচেতন অবস্হায় পড়ে আছে। সংঙ্গে সংঙ্গে ব্যাংদহা বাজারের আরোগ্য নিকেতন ক্লিনিকের ডাক্তার দেব্রত কুমার মিত্রকে ডেকে নিয়ে মহাদেব সরদার ও বাসন্তি রানিকে চিকিৎসা দেওয়া হয়। শুক্রবার সন্ধার সময় ডাক্তার দেব্রত কুমার মিত্রসহ প্রতিবেশিরা জানায়, মহাদেব সরদার ও বাসন্তি রানি এখনো দূর্বল আছে, স্যালাইন চলছে দ্রুতই সুস্থ হয়ে উঠবে। ঘটনাটি জানা জানি হলে তাদেরকে এক নজর দেখার জন্য ছুটে আসছে স্থানীয় এলাকাবাসী। তবে এ নিয়ে এলাকায় সর্বত্রই চলছে আলোচনা সমালোচনা।

ফিংড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ সামসুর রহমান জানান, ছেলে কতৃক মা-বাবা’কে ঘুমের ঔষধ খাইয়ে অচেতন করার ঘটনাটি সত্য। আসলে বিষয়টি খুবই দুঃখজনক, মৃনালকে এরজন্য শাস্তির ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। বর্তমানে তার মা-বাবা দু’জনই অনেকটা সুস্থ আছেন।


এই শ্রেণীর আরো সংবাদ