শনিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২২, ১২:৫৮ অপরাহ্ন

মহিপুরে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে অভিযুক্ত স্কুল শিক্ষক কারাগারে

পটুয়াখালী সংবাদদাতা / ৪১৫
প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ১৯ আগস্ট, ২০২১

হত্যাচেষ্টার অভিযোগে অভিযুক্ত করে পটুয়াখালী জেলার কলাপাড়া উপজেলাধীন মহিপুর থানার অন্তর্গত মহিপুর সদর ইউনিয়নের নিজশিববাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোঃ আল-আমিন সোহাগকে কারাগারে প্রেরন করেছেন কলাপাড়া উপজেলা সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, অভিযুক্ত এ স্কুল শিক্ষক দীর্ঘদিন যাবত বে-আইনি সমাবেশের সদস্য হয়ে দাঙ্গা হাঙ্গামার মাধ্যমে অন্যের সম্পদ লোপাট, ইচ্ছাকৃতভাবে বিপদজনক অস্ত্রদ্বারা আঘাত করে অন্যের সম্পত্তি অন্যায় ও অবৈধভাবে জবর দখল নেয়া, ধারালো অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে অত্যাচার এমনকি জমি ও টাকার লোভে মৃত ব্যক্তিকে দাফনকার্যে বাধা দেয়ার মত ঘৃনিত কাজের সাথে জড়িত ছিল।

এলাকাবাসী জানান, স্কুল শিক্ষক আলামিন সোহাগ সরকারী চাকুরী করে এবং তার বড়ভাই পুলিশের এস আই তাই তার দাপটে মানুষের প্রান নাশসহ না করতে পারে এমন কূকর্ম বাকী নাই। টাকা ও জমির লোভে এলাকার সাবেক মেম্বর মোঃ তোফাজ্জল হোসেনের মৃত দেহ আটক করেও চাদা দাবী করেছে এই স্কুল শিক্ষক ও তার সহযোগীরা। আমরা এই শিক্ষকের দ্রæত বিচার ও চাকুরী হতে বহিষ্কারের দাবী জানাই।

মামলার বাদী মোঃ সোহেল হাওলাদার বলেন, মামলার আসামীগন আমার পিতার ভোগ দখলীয় সম্পত্তি অন্যায়ভাবে জবর দখল করার অপপ্রয়াস করিলে আমার পিতা আসামীদের বিরুদ্ধে পটুয়াখালী বিজ্ঞ আদালতে ১২৩/২০১৩ নং মামলা দায়ের করেন। বিজ্ঞ আদালত আসামীদের বিরুদ্ধে অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞার আদেশ প্রদান করেন। কিন্তু এতদসত্তে¡ও বিজ্ঞ আদালতের রায় অমান্য করে আসামীগন ক্ষীপ্ত হয়ে আমার পরিবারের ওপর অত্যাচার শুরু করে আমাকে, আমার ছোট ভাইকে, বাবা ও চাচাকে অবৈধ অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে খুন করার চেষ্টা করলে আমরা কোনো ভাবে প্রানে বেঁচে বিজ্ঞ আদালতে ৫৬/২০২১ মামলা দায়ের করি। আসামীগন এতে আরও ক্ষীপ্ত হয়ে গত ১৮/০৫/২০২১ আমাদের জমির উপর রাতের অন্ধকারে ঘর নির্মানের মাধ্যমে জবর দখলের অপচেষ্টা করিলে আমরা আবারও তাদের নিষেধ করতে যাই। এতে তারা বিভিন্ন অস্ত্রসস্ত্র নিয়া আমাদের উপর হামলা করে খুন করার উদ্দেশ্যে আঘাত করে ও কোপ দেয়। আমাদেরকে এলাকাবাসী রক্তাক্ত হাড়কাটা জখম অবস্থায় কলাপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে ভর্তি করে আমাদের জীবন বাচান। আসামীর বড়ভাই মোঃ আলমগীর একজন পুলিশের এস আই হওয়ার আসামীদের ভয়ে এলাকায় কোনো বিচার না পেয়ে বিজ্ঞ আদালতে ৫৭১/২০২১ মামলা দায়ের করি। বিজ্ঞ মহামান্য আদালত আসামী স্কুল শিক্ষক মোঃ আল-আমিন সোহাগকে আদালতে প্রেরনের নির্দেশ দেন। অন্যান্য আসামীরা অবাধে ঘুরে বেড়াচ্ছে। আসামীদের দ্বারা আমাদের পরিবারের জীবন নাশের সম্ভাবনা রয়েছে। আমি ও আমার পরিবারের সকলে সরকারের নিকট আসামীকে চাকরি হতে বহিষ্কার ও আসামীদের শাস্তি দাবী করছি।


এই শ্রেণীর আরো সংবাদ