HEADLINE
পরীক্ষার সময় পরিবহন চলা নিয়ে নিশ্চিত নয় জবির পরিবহন পুল উপকূলে সংকট বাড়ছে, সংকট সমাধানে প্রয়োজন সুপেয় পানি সহ টেকসই বেড়িবাঁধ খলিশাখালিতে প্রতিবাদ সমাবেশ, প্রশাসনের সহযোগীতা চান ভূমিহীনরা একটি ছবি হয়ে উঠেছে আদর্শ ও অনুপ্রেরণা উৎস : তথ্য প্রতিমন্ত্রী খুলনায় ইউপি ভবন থেকে অস্ত্র-গুলিসহ গ্রেফতার ৩ আশাশুনিতে পারস্পরিক শিখন প্রাতিষ্ঠানিকীকরণে অভিজ্ঞতা বিনিময় সফর বল্লীতে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা কেশবপুরের বিল খুকশিয়ায় মাছের ঘেরের বেড়িতে তরমুজ চাষে কৃষকের সাফল্য সাতক্ষীরা রেঞ্জের অভয়ারণ্য থেকে ৩ জেলেসহ মাছ ধরা ট্রলার আটক অসহায় মানুষের পাশে “আল নূর” পরিবার
শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:১২ অপরাহ্ন

ভোমরা সীমান্তের বিপরীতে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণে বিজিবির বাঁধার মুখে কাজ বন্ধ করলো বিএসএফ

নিজস্ব প্রতিবেদক / ৬৩৪
প্রকাশের সময় : শনিবার, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০২১

ফাইল ফটো

সাতক্ষীরার ভোমরা সীমান্তের বিপরীতে ভারতের ঘোজাডাঙ্গায় বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্স (বিএসএফ) নির্মিত অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ বন্ধ করে দিয়েছে বিজিবি। আন্তর্জাতিক সীমানা আইন লঙ্ঘন করে শুন্য লাইন থেকে মাত্র ২৫ গজ দূরে বিএসএফ’র চৌকি নির্মিত হচ্ছিল। প্রতিবাদের পরেও নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখেনি বিএসএফ। পরে বিজিবি’র কড়া প্রতিক্রিয়ায় স্থাপনার সমস্ত মালামাল সরিয়ে নিতে বাধ্য হয় তারা।

ভোমরা বিজিবি’র বিওপি কমান্ডার সুবেদার হারুণ-অর-রশিদ জানান, শনিবার সকাল ৯টার দিকে শুন্য লাইনের কাছেই নির্মাণ করা হচ্ছিল একটি স্থাপনা। স্থাপনাটি বিএসএফ’র প্রহরা চৌকি টাইপের হবে। যদিও বৈঠকে তারা জানিয়েছে,স্থানীয়রা ফুটবল খেলার মাঠের পাশে গাড়ি পার্কিংয়ের স্থাপনা নির্মাণ করছিল। সুবেদার হারুণ আরও জানান, ঘোজাডাঙ্গা বিএসএফ’র সহকারি কমিশনার শহিদুল হকের সাথে তিনি বৈঠক।করেছেন। সকাল এগারটার বৈঠকে এসি শহিদুল তাকে আশ্বস্ত করেছিলেন, দ্রুতই তারা স্থাপনা সরিয়ে নেবেন। তবে তা না নেওয়ায় আমরা অস্ত্র তাক করে পজিশনে চলে যাই। পরবর্তীতে দুপুর একটার দিকে তারা স্থাপনা ভেঙে সব মালামাল সরিয়ে নেয়।

সাতক্ষীরা ৩৩ বিজিবি’র অধিনায়ক লে. কর্নেল আল মাহমুদ জানান, সকাল ৯টার দিকে তারা নির্মাণ কাজ শুরু করে। জানতে পেরে আমরা সর্বোচ্চ সতর্কাবস্থায় থাকি। পরে কোম্পানি কমান্ডার পর্যায়ে যোগাযোগ করলে বিজিবিকে জানানো হয়, খেলার মাঠে পার্কিং স্থাপনা নির্মাণ করছে স্থানীয়রা। তবে এগারটার মধ্যে স্থাপনা সরিয়ে নেওয়ার কথা বললেও তারা কথা রাখেননি। পরে ব্যাটালিয়ন পর্যায়ে কড়া প্রতিক্রিয়া জানানোর পর তারা নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেয়। পরে স্থাপনার সমগ্র সামগ্রী সরিয়ে ফেলতে বাধ্য হয় তারা।


এই শ্রেণীর আরো সংবাদ