HEADLINE
বল্লীতে বজ্রপাতে শিশুর মৃ’ত্যু ভোমরা স্থলবন্দরে অস্থিতিশীলতা সৃষ্টিকারীদের কোনভাবেই ছাড় দেওয়া হবে না বলাডাঙ্গায় জমি সংক্রান্ত বি’রো’ধে বড় ভাইয়ের হাতে ছোট ভাই খু’ন বৈষম্যের প্রতিবাদে সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ অফিসে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কর্মবিরতি সাতক্ষীরার উন্নয়ন ইস্যুতে ৫ এমপি’কে এক টেবিলে বসার আহবান সাতক্ষীরায় তামাক কোম্পানির বিজ্ঞাপণে সয়লাব, টার্গেটে কিশোর ও তরুণ সাতক্ষীরায় বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবস পালন সাতক্ষীরার পর এবার মাগুরার সিভিল সার্জনের বিরুদ্ধে জনবল নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ! কলারোয়ায় এক কৃষকের ঝু’ল’ন্ত লা’শ উ’দ্ধা’র কলারোয়ায় স্বামীর পুরুষা’ঙ্গ কে’টে দ্বিতীয় স্ত্রী’র আ’ত্ম’হ’ত্যা
সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ১০:২৩ অপরাহ্ন

বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তন : বর্তমান অবস্থা ও ভবিষ্যৎ

নাফিসা তাবাসসুম / ২০৪
প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল, ২০২৪

কোনো একটি জায়গায় বছরের পর বছর ধরে আবহাওয়ার যে অবস্থা বা গড়-পড়তা ধরন বিরাজ করে থাকে,তাকে জলবায়ু বলে। সাম্প্রতিক সময়ে আমাদের বিশ্বে অতিগুরুত্বপূর্ণ ও বিস্তৃতভাবে চর্চা ও আলোচিত একটি শব্দ হলো জলবায়ু।ইদানিং দুটি বহুল আলোচিত শব্দ হলো :- জলবায়ু পরিবর্তন ও বৈশ্বিক উষ্ণায়ন। “বৈশ্বিক উষ্ণায়ন” বা “Global Warming” বলতে পৃথিবীর তাপমাত্রা বৃদ্ধি বা উষ্ণায়নের একটি প্রক্রিয়াকে নির্দেশ করা হয়। আর আমাদের আবহাওয়ার সেই পরিচিত রূপ বদলে যাওয়াকে বলা হচ্ছে জলবায়ু পরিবর্তন। পৃথিবীর তাপমাত্রা বৃদ্ধির ফলে বদলে যাচ্ছে আবহাওয়ার দীর্ঘদিনের পরিচিত রূপ।”জলবায়ু পরিবর্তন” শব্দটি শুনে শুনে আমরা কিছুটা অভ্যস্ত হয়ে পড়েছি,তবে এর প্রভাব বা ফলাফল কতটা ভয়াবহ হতে পারে সেটি আমাদের কল্পনার বাহিরে।ইদানিং আমরা এর বেশকিছু উদাহরণ লক্ষ্য করতে পারছি। বিশ্বের জলবায়ু ঝুঁকি সূচক (সিআরআই)-এর একটি পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে,১৯৯৬ সাল থেকে ২০১৫ সাল অবধি জলবায়ু পরিবর্তনে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে হন্ডুরাস, আছে মিয়ানমারের নামও। গেল ২০ বছরে এই পরিবর্তনের কুফলে মারা যায় ৫ লাখ ২৮ হাজারেরও বেশি মানুষ, ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে ৩দশমিক ৮ ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলার, আবহাওয়া বিপর্যয়ের ঘটনা ঘটেছে ১১ হাজারটি। সম্প্রতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে, বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলের জেলা গুলোতে মাত্র একমাসের ব্যবধানে বন্যা থেকে খরা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে, পৃথিবীর অন্যতম শীতল অঞ্চল রাশিয়ার সাইবেরিয়াও তাপপ্রবাহ থেকে মুক্তি পাচ্ছেনা, উত্তর আমেরিকা থেকে ইউরোপ হয়ে চীন পর্যন্ত বিস্তৃত উত্তর গোলার্ধ খরায় কেটেছে, আরব আমিরাতের উপকূলীয় শহর দুবাইতে স্মরণকালের রেকর্ড বৃষ্টিপাতে নজিরবিহীন বন্যা।পৃথিবীর এসব পরিবর্তনের জন্য দায়ী করা হচ্ছে গ্রিনহাউস গ্যাসের নির্গমন, বনাঞ্চল ধ্বংস, আরবান হিট আইল্যান্ড ইফেক্ট, ক্লাউড সিডিং এর মতো ঘটনা গুলোকে। আমার দৃষ্টিকোণ হতে, প্রাকৃতিক নানা কারণে জলবায়ু স্বাভাবিকভাবে পরিবর্তন হলেও মূলত মানবসৃষ্ট কারণে জলবায়ুর দ্রুত পরিবর্তন হচ্ছে। আমরা সাইন্স ফিকশন মুভিতে দেখে থাকি আগামীতে জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে ঘটতে পারে কি কি ঘটনা! দেখা যায়, খাদ্যসংকট, প্রাকৃতিক দূর্যোগ, এসিড বৃষ্টি, সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বেড়ে যাওয়ার মতো ঘটনায় মানবজাতি পড়ে যায় চ্যালেঞ্জের মুখে, খুঁজতে থাকে পৃথিবীর মতো অন্য কেনো গ্রহ তবে তা সহজ কোনো কাজ নয়!
মুভিতে দেখানো এসব বিপর্যয় আগামীতে জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে যা ঘটতে চলেছে তার তুলনায় কিছুই নয়। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে পৃথিবীর ভবিষ্যৎ নিয়ে জারিকৃত জাতিসংঘের “রেড অ্যালার্ট” থেকে বোঝা যায় ভবিষ্যতে আমাদের জন্য অপেক্ষা করছে কত অকল্পনীয় বিপর্যয়!আমাদের পৃথিবীর এই বিপর্যয় নিয়ে বিজ্ঞানীরা আশঙ্কা করছেন অতিরিক্ত গরমের ফলে খরার প্রকোপ দেখা দিতে পারে অস্ট্রেলিয়ায়, বৃদ্ধি পেতে পারে সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা, ফলে বিলীন হয়ে যেতে পারে ছোট অনেক দ্বীপ বা দ্বীপরাষ্ট্র। বৃষ্টিপাতের মাত্রা বেড়ে ঘনঘন বন্যা হতে পারে ব্রিটেন এ, ঘটবে সুপেয় পানির অভাব ও হ্রাস পাবে প্রাকৃতিক সম্পদ। খরার প্রকোপ বেড়ে খাদ্যসংকট দেখা দিতে পারে আফ্রিকার কিছু দেশেও। দরিদ্রতর ও স্বল্পন্নোত দেশগুলো এ ঝুঁকিতে বেশি রয়েছে। প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ না করা হলে মানবজাতি ও অনান্য জীবসমূহ এক ভয়াবহ বিপর্যয়ের সম্মুখীন হবে। কিছু উপায় অবলম্বন করে এর প্রভাব হ্রাস করা যায় । যেমন: জীবাশ্ম জ্বালানির ব্যবহার হ্রাস, মিথেন গ্যাস নির্গমন হ্রাস, বৃক্ষ রোপনপর হার বৃদ্ধি, বায়ু থেকে গ্রিনহাউস গ্যাস দূরীকরণ, দরিদ্র দেশগুলোকে আর্থিক সহোযোগিতা ইত্যাদি। এছাড়া সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ ও সাধারণ মানুষের সতর্কতার মাধ্যমে এ পরিবর্তন কিছুটা হলেও কমানো সম্ভব।

লেখিকা: নাফিসা তাবাসসুম
শ্রেণি: ৮ম, রোল: ০২
কলারোয়া সরকারি জি,কে,এম,কে পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়।


এই শ্রেণীর আরো সংবাদ