HEADLINE
পরীক্ষার সময় পরিবহন চলা নিয়ে নিশ্চিত নয় জবির পরিবহন পুল উপকূলে সংকট বাড়ছে, সংকট সমাধানে প্রয়োজন সুপেয় পানি সহ টেকসই বেড়িবাঁধ খলিশাখালিতে প্রতিবাদ সমাবেশ, প্রশাসনের সহযোগীতা চান ভূমিহীনরা একটি ছবি হয়ে উঠেছে আদর্শ ও অনুপ্রেরণা উৎস : তথ্য প্রতিমন্ত্রী খুলনায় ইউপি ভবন থেকে অস্ত্র-গুলিসহ গ্রেফতার ৩ আশাশুনিতে পারস্পরিক শিখন প্রাতিষ্ঠানিকীকরণে অভিজ্ঞতা বিনিময় সফর বল্লীতে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা কেশবপুরের বিল খুকশিয়ায় মাছের ঘেরের বেড়িতে তরমুজ চাষে কৃষকের সাফল্য সাতক্ষীরা রেঞ্জের অভয়ারণ্য থেকে ৩ জেলেসহ মাছ ধরা ট্রলার আটক অসহায় মানুষের পাশে “আল নূর” পরিবার
শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:২৮ অপরাহ্ন

বাগেরহাট প্রেস ক্লাবে সাংবাদিকের পাল্টা সংবাদ সম্মেলন

প্রেস বিজ্ঞপ্তি / ৩৫
প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ১৩ আগস্ট, ২০২১

হত্যার হুমকি ও হামলার ঘটনা আরাল করতে ভূমিদস্যু সুভাস দেবনাথের মিথ্যাচারের বিরুদ্ধে বাগেরহাট প্রেস ক্লাবে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করেছেন সাংবাদিক উজ্জ্বল কচুয়া দাস।এ সময় তার সাথে শিক্ষক নিত্য রন্জন ঘোষ উপস্থিত ছিলেন।
১৩ আগষ্ট শুক্রবার সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন।লিখিত বক্তব্যে তিনি উল্লেখ করেন-আমি উজ্জ্বল কুমার দাস,পিতা-দেব রন্জন দাস,গ্রাম-খলিশাখালী আমি বহুল প্রচারিত জাতীয় দৈনিক শিরোমনি ও তথ্য মন্ত্রণালয়ের অনুমোদিত দৈনিক ভোরের কলাম পত্রিকার কচুয়া উপজেলা সংবাদ কর্মী হিসাবে কাজ করছি।আমার আত্মীওর ক্রয়কৃত একটি জমি জোরপূর্বক দখলের পায়তারা সহ বিভিন্ন সত্য সংবাদ প্রচারে বাঁধা সৃষ্টি করে সংবাদিক হিসাবে আমার কন্ঠ রোধ করতে দীর্ঘ দিন ধরে একটি মহল আমার বিরুদ্ধে জঘন্য তম ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে।
যার ধারাবাহিকতায় ভূমিদস্যু ও জাল জালিয়াতির হোতা সুভাস দেবনাথ গত ৯ আগস্ট সোমবার আমি সহ আরো দুজনের নাম উল্লেখ করে কচুয়া প্রেসক্লাবে একটি লিখিত সংবাদ সম্মেলন করেন।সেখানে আমি সহ আরো দুজনের নাম উল্লেখ করে কচুয়া প্রেসক্লাবে একটি লিখিত সম্মেলন করেন।সেখানে আমি সহ আরো দুজনের নাম উল্লেখ করে যে বক্তব্য দিয়েছেন তা সম্পূর্ণ মিথ্যা,ভিত্তিহীন,বানোয়াট ও মনগড়া বক্তব্য ছাড়া আর কিছুইনা।আমি ছাড়া বাকি দুজনের একজন নিত্য রন্জন ঘোষ দীর্ঘ দিন ধরে শিক্ষাকতার মহান পেশায় জড়িত তিনি বর্তমানে একটি সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কর্মরত আছেন ও বাকি অন্যজন কচুয়া বাজারের সনামধন্য ব্যাবসায়ী।দুজনের সাথেই শুভাস দেবনাথের যায়গা সংক্রান্ত বিষয়ে বিরোধ চলমাল।আর এ কারনে আমি সহ তাদের জরিয়ে একটি পরিকল্পিত মিথ্যাচার করা হয়েছে।এ বিষয়ে শিক্ষক নিত্য রন্জন ঘোষ কচুয়া প্রেসক্লাবে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করে প্রতিবাদ জানিয়েছেন।
উল্লেখ্য উক্ত সাংবাদিক সম্মেলনে বক্তব্য দেওয়া সুভাষ দেবনাথ ও তার সাথে উপস্থিত আশরাফ আলী শেখ সহ আরো ৩ জনের নাম উল্লেখ করে আমি গত ৭ আগষ্ট শনিবার কচুয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছিলাম।অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছিল ঐদিন পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা,জীবন নাশের হুমকি সহ কিছু মূল্যবান জিনিস পত্র ছিনিয়ে নেওয়া হয়েছে।আর এই ঘটনাকে আরাল করতেই সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে মনগড়া কাল্পনিক গল্প তৈরি করা হয়েছে।যা আমার কাছে মান হানির সামিল।
এছাড়া আমার অত্যাচার, ষড়যন্ত্র ও হুমকিতে এলাকাবাসি অতিস্ট হয়ে উঠেছে বলে যে অভিযোগ করেছেন এমন কোন প্রমান তাদের কাছে বা কারো কাছে নেই বরং নিজে অপরাধ থেকে বাঁচতে যুদ্ধাপরাধী মামলার স্বাক্ষী কথাটি প্রকাশ করেছেন।এর মাধ্যমে এটাই প্রমাণ করে মূল ঘটনাকে আড়াল করতে যুদ্ধাপরাধী মামলার স্বাক্ষী কথাটি ব্যাবহার করে দৃষ্টি অন্য দিকে ঘুরানো চেষ্টা করেছেন ।যার সাথে অভিযোগের বিষয়ের সাথে কোন সত্যাতা নেই।
তাদের সংবাদ সম্মেলনে উল্লেখ করা হয়েছে আমি সহ আরো ২ জন মিলে বাহিনী তৈরী করে অন্যের জমি দখল,মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী, মেয়েদের উত্যক্ত করা, মাদক সিন্ডিকেট তৈরী করে যুব সমাজকে ধ্বংসের দিকে ঠেলে দেওয়া, বিভিন্ন লোকের বাড়ী-ঘর,দোকানপাট চুরি, চাঁদাবাজী সহ নানা অপরাধ করেছি বলে সাংবাদিক সম্মেলনে মিথ্যাচার করেছে আমি এ জাতীয় কোন ঘটনার সঙ্গে জরিত নাই।বরং অভিযোগকারি সুভাস দেবনাথের আপন ভাইপো দেবাশীষ দেবনাথ এলাকায় একজন চিহ্নিত মাদকাসক্ত ও মাদক ব্যাবসায়ী।তিনি মাদক মামলার একজন পলাতক আসামিও বটে।তার নামে এ সংক্রান্ত দৈনিক পূর্বাঞ্চল সহ বেশ কিছু আঞ্চলিক,জাতীয় ও অনলাইন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে।
সুভাস দেবনাথ,আশরাফ আলী শেখ,দেবাশীষ দেবনাথ,আব্দুল গপ্ফার সহ আরো কয়েকজন মিলে বহু দিন ধরে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে।জাল-জালিয়াতির মাধ্যমে চক্রটি এলাকার বেশ কিছু মানুষকে মামলা জ্বালে ফেলে কয়েক যুগধরে হয়রানি ও জিম্মি করছে এবং ভয়ভীতি প্রদর্শন করে যায়গা দখলের পায়তারা অব্যাহত রেখেছে।এ ধরনের অপরাধ ছাড়াও সুভাস দেবনাথ এক সময় এলাকার চোরাচালানি সিন্ডিকেটের অন্যতম সদস্য ছিলেন।ভয়ভীতি দেখিয়ে তিনি ভূমিহীনদের দেওয়া সরকারি জায়গা বিক্রি করে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার সাথেও যুক্ত।এ বিষয় ভুক্ত ভোগী পরিবার প্রচন্ড হুমকির শিকার হয়ে এখন ভীতিকর দিন কাটাচ্ছেন।এ বিষয়ে আমার কাছে কিছু ভিডিও ও অডিও প্রমান রয়েছে।এছাড়াও এই চিহ্নিত চক্রটির কয়েজন সদস্য মাদক কেনা-বেঁচা ও জুয়াখেলার সাথেও যুক্ত রয়েছে।এছাড়াও প্রশাসন সহ সাংবাদিক বন্ধুরা খোঁজ নিয়ে দেখবেন অভিযোগ কারিদের মধ্যে জামায়াতে ইসলামীর সাবেক নেতা ও কারো পিতা ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা যুদ্ধে পিস কমিটির সভাপতিও ছিলেন।এছাড়া অভিযোগ কারি সুভাস দেবনাথের ছেলে সুকদেবনাথ ছিলেন একসময় আলোচিত  জননিরাপত্তা মামলার অন্যতম আসামি।তাই প্রকারান্তরে এরাই উল্লেখিত অভিযোগের সাথে যুক্ত।
আমি ২০০৯ সাল থেকে মূল ধারার সাংবাদিকতা পেশার সাথে জরিত ও একটি আন্তর্জাতিক সেবা মুলক সংস্থায় কচুয়া উপজেলায় দীর্ঘ ৭ বছর সুনামের সাথে সহায়তাকারী হিসাবে কাজ করছি।এছাড়াও এলাকার অসংখ্য উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে আমি মানুষের কাছে পরিচিত মুখ।তাই তাদের সংবাদ সম্মেলনের অভিযোগে সাংবাদিক ও এনজিও কর্মী দাবি করা বিষয়টি উল্লেখ করা ছিল হাস্যকর ও অপ্রাসঙ্গিক।আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করে তাদের অবৈধ কার্যকালাপ বৈধ করার পক্রিয়ার অংশ হিসাবে সংবাদ সম্মেলনে এধরনের মিথ্যাচার করে আমার সম্মানহানি করা হচ্ছে।
সংবাদ সম্মেলনে প্রশাসনের সহযোগীতা চেয়ে তারা যে ধরনের মিথ্যাচার করেছেন তার তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।সেই সাথে আমি পাল্টা সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে এই সব সুবিধাভোগী রাজনৈতিক লেবাসধারী,সন্ত্রাসী,ভূমিদস্যু,জালিয়াত,মাদকাসক্ত ও মাদক ব্যাবসায়ীদের হাত থেকে আমি সহ ভুক্ত ভোগী সাধারণ মানুষ যেন মুক্তি পায় সে ব্যাবস্থা গ্রহণে প্রশাসনের দ্রুত পদক্ষেপ আসা করি।এছাড়াও সংবাদ সম্মেলন শেষে সাংবাদিক উজ্জ্বল কুমার দাস সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন।


এই শ্রেণীর আরো সংবাদ