HEADLINE
শ্যামনগরে ইটভাটায় জ্বালানি হিসাবে ব্যবহার হচ্ছে কাঠ সাতক্ষীরায় ঔষধ ফার্মেসী থেকে ৯ হাজার পিচ নেশাদ্রব্য ট্যাবলেটসহ গ্রেপ্তার ২ জমকালো আয়োজনে ঝাউডাঙ্গায় ৮ দলীয় ফুটবল টুর্ণামেন্ট উদ্বোধন যশোরের কেশবপুরে কোটি কোটি টাকার সোলার স্ট্রিট লাইট নষ্ট! ভূয়া এতিম দেখিয়ে বছরের পর বছর সরকারি অর্থ আত্মসাৎ! ঝাউডাঙ্গায় মেয়াদবিহীন ও লাইসেন্স ছাড়া চলছে বেকারী পণ্য বাজারজাতকরণ ছাত্র-ছাত্রীদের পাঠদানে ফিরে আনা জরুরী ঝাউডাঙ্গায় গলায় ফাঁস দিয়ে কলেজ ছাত্রের আত্মহত্যা নলতায় ডা: ছবুরের বাড়ীতে দুর্ধর্ষ চুরি, টাকাসহ স্বর্ণালংকার লুট  স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানের নারী ও যুববান্ধব বাজেটের অন্তরায়
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮:৫৬ পূর্বাহ্ন

দেবহাটায় প্রতিপক্ষের যন্ত্রনায় এক পরিবারের ভিটে ছেড়ে ভাড়া বাড়িতে বসবাস

দেবহাটা প্রতিনিধি / ২৯১
প্রকাশের সময় : শনিবার, ৭ আগস্ট, ২০২১

একাধিক বার হত্যাচষ্টাসহ বিভিন্ন সম্পদের ক্ষতি সাধন। প্রতিনিয়ত হুমকি ধামকীতে প্রাণের ভয়ে স্ত্রী-সন্তান নিয়ে বাড়ি ছেড়ে অন্যত্র ভাড়া বাড়িতে বসাবস করছে এক অসহয়ায় পরিবার। সিসি ক্যামেরা খাটিয়েও রেহাই পাচ্ছেনা তারা। এসব অভিযোগ করেছেন উপজেলার উত্তর সখিপুর গ্রামের শেখ মওদাদুর রহমানের পুত্র মোমিনুর রহমান। তিনি জানান, আমার পিতার চাকুরীর সুবাদে আমরা দীর্ঘদিন খুলনার দৌলতপুরে বসবাস করতাম। গত ৮/১০ বছর আগে আমার আব্বার চাকুরী শেষ হলে ফিরে আসি পৈত্রিক নিবাস উত্তর সখিপুরে। নিজেদের জমিতে বসতবাড়ি নির্মান করে শুরু করি বসবাস। বাড়িতে এসে আমি গড়ে তুলি কৃষি ভিত্তিক ছোট ছোট দুই একাটি খামার । তবে আমরা যখন খুলনাতে থাকতাম তখন আমাদের জমিজমাসহ এখানকার সমুদয় সম্পদ দেখাশুনা করত উত্তর সখিপুর গ্রামের শেখ মোকছাদুর রহমান ও শেখ মাহাবুবার রহমান। সেই থেকে আমাদের সম্পদের উপর লালসার জন্ম হয় তাদের। আমি বাড়ি আসার পরে যখন সেই সম্মত্তি নিজে দেখাশুনা শুরু করি তখন তারা ক্ষিপ্ত হয়ে আমাদের উপর শুরু করে বিভিন্ন অত্যাচার। এরপর অভিযুক্তদের সাথে শুরু হয় বিভিন্ন গোলোযোগ। তারা আমাদের জমিতে লাগানো গাছ কেটে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। আমি প্রতিবাদ করলে তারা আমার উপর চড়াও হয়ে মারপিট করে জীবননাশের চেষ্টা এবং হুমকি দেয়। এই মর্মে আমি দেবহাটা থানায় বিগত ইং ২৭/০৬/২০২০ তাহাদের নামে একটি সাধারন ডায়েরী করি। যার নং- ৮১০। আমাদের জমির সীমানা প্রাচীর নির্মাণ কাজেও তারা প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে। এরপর তারা গত ইং- ১২/০৯/২০২০ তারিখে আমাকে এবং আমার পিতাকে মারপিট করে গুরুত্বর জখম করে। যে কারণে আমরা দীর্ঘ ২১ দিন সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলাম। এরপরও অভিযুক্তরা আমাদেরকে পুনরায় মারপিট করিবে এবং ক্ষয়ক্ষতি করবে বলে হুমকি দিতে থাকে। গত ইং ১১/১১/২০২০ তারিখ আমার বাড়ির সামনের রাস্তায় পুনরায় আমাকে লাথি, চড়, কিল, ঘুষি ও লাঠি দ্বারা পিটিয়ে জখম করে। পরবর্তীতে আমি গত ২৪/১১/২০২০ তারিখে দেবহাটা সার্কেলের এএসপি’র নিকট একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করি। বিষয়টি নিয়ে সার্কেল সাহেব কয়েকটি দিন দিলেও কোন সমাধান আসেনি। অবশেষে তাদের অত্যাচারে আমি বাধ্য হয়ে প্রাণের ভয়ে ছোট ২ কন্যা সন্তান ও স্ত্রীকে নিয়ে চলতি বছরের মার্চ মাসে নলতায় বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস শুরু করছি। এতেও থেমে নেই উত্তর সখিপুর গ্রামের শেখ মোছাদুর রহমানের পুত্র শেখ মতিয়ার রহমান, মতিয়ার রহমানের পুত্র শেখ আহছান ও মতিয়ার রহমানের স্ত্রী সাবানা খাতুন, মোখছাদুর রহমানের পুত্র মফিজুর রহমান, তার ভাই মঈনুর রহমান। এদের বিরুদ্ধে আমি ১২৯/১১ নং মামলাও দায়ের করেছি। এর পরেও থেমে নেই তারা । এখনও হুমকি দিয়ে বেড়াচ্ছে যে, যেকোন উপায়ে আমাকে হত্যা করে আমাদের সম্পত্তি জোরপূর্বক ভোগদখল করে নিবে। আর তাই আমাদের বাড়িতে নিরাপত্তার জন্য সিসি ক্যামেরা স্থাপন করি। কিন্তু সর্বশেষ ৪ আগষ্ট রাত ১০ টার দিকে বিবাদীরা আমাদের বাড়িতে এসে ঐ ক্যামেরা খুলে চুরি করে  নিয়ে যায়। যার ভিডিও সংরক্ষন করা আছে। পরের দিন বৃহষ্পতিবার (৫ আগষ্ট) দেবহাটা থানায় পুনরায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছি। বর্তমানে আমি তাদের অত্যাচার ও ভয়ে গ্রাম ছাড়া হয়ে বসবাস করছি। এ বিষয়ে আমি পুলিশ সুপার ও দেবহাটা থানার ওসি সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনার পাশাপাশি তাদের শাস্তি ও যাতে করে আমি নিজ বাড়িতে শান্তিপূর্ণ ভাবে বসবাস করতে পারি সেজন্য সকলের সহযোগীতা কামনা করছি।দেবহাটা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বিপ্লব কুমার জানান, সিসি ক্যামেরা চুরির বিষয়ে অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্তের মাধ্যমে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


এই শ্রেণীর আরো সংবাদ