শনিবার, ২৪ জুলাই ২০২১, ০৩:৪১ পূর্বাহ্ন

দেবহাটার চন্ডীপুরে মিলন চৌধুরীর স্ত্রী শাহানাজ’র মৃত্যু

মনিরুজ্জামান (মহসিন) / ২২
প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ৬ জুলাই, ২০২১

 মহামারী করোনা ভাইরাসের থাবা থেমে নেই। একের পর এক প্রাণ ঝরে যেতেই আছে। নেই কোনো বয়সের সিরিয়াল। তাই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গত ৮/১০ দিন যাবৎ ৩য় তলার একই মহিলা ওয়ার্ডে চিকিৎসা সেবা গ্রহণ করতে থাকেন আপন তিন বোন। অর্থাৎ সাতক্ষীরা জেলার দেবহাটার নওয়াপাড়া গ্রামের শেখ আব্দুল গফুরের বড় মেয়ে ও নলতার ঘোড়াপোতা এলাকার আজহারুল হক সরদারের স্ত্রী মমতাজ পারভীন, সেজ মেয়ে ও নওয়াপাড়া গ্রামের মুকুল মোল্লার স্ত্রী রিনা পারভীন ও সখিপুর  ইউপির ৯ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক, চন্ডীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সাবেক সভাপতি মাসুদ আনোয়ার চৌধুরী মিলন’র স্ত্রী শাহানাজ পারভীন (৩২)। 
একই ওয়ার্ডের মধ্যে সেজ বোন প্রবেশ পথের দিকে একটি বেডে থাকলেও ২৪ নং বেডে বড় বোন মমতাজ এবং ২৬ নং বেডে ছোট বোন শাহানাজ চিকিৎসা গ্রহণ করেন। এর মধ্যে ৬ জুলাই মঙ্গলবার সকাল ৭ টায় সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সকলকে কাঁদিয়ে না ফেরার দেশে পাড়ি জমালেন ৩ বোনের অর্থাৎ সকল ভাই-বোনের সবচেয়ে ছোট বোন  শাহানাজ পারভীন (৩২)। ইন্নানিল্লাহি..  রাজিউন। 
পারুলিয়া এস এস মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক আবু জাফর বাবুল’র আপন ছোট বোন, নাংলা ঘোনাপাড়া গ্রামের আব্দুস সালামের ছোট শালিকা অত্যন্ত মিশুক, সদালাপী, পরোপকারী, সাদা মনের মানুষ শাহানাজ পারভীন মৃত্যুকালে স্বামী মিলন চৌধুরী, ৭ম ও ৯ম শ্রেণি পড়ুয়া ২ পুত্র, পিতা, ৩ ভাই বাবুল, খোকন ও সবুজ, ৩ বোন সহ অসংখ্য গুণগ্রাহ, আত্মীয়-স্বজন বা শুভাকাঙ্ক্ষী রেখে গেছেন।  
মঙ্গলবার বেলা ১১ টায় নামাজে জানাজা শেষে মরহুমাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে বলে জানা গেছে। তার অকাল মৃত্যুতে সকল মহলে শোকের ছাঁয়া নেমে এসেছে। 
উল্লেখ্য, সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে উক্ত রোগীর সহ অন্যান্য রোগীর জন্য অনেক চিকিৎসক আন্তরিকতার সাথে চিকিৎসা সেবা প্রদান করলেও রাতে চিকিৎসকদের রাউন্ডের পর থেকে প্রতিটি ফ্লোরের জন্য ২/৩ দিন করে ইন্টার্ন চিকিৎসক এবং একজন করে সিনিয়র চিকিৎসক থাকেন বলে জানতে পারি। কিন্তু শাহানাজের ভুক্তভোগীদের ভাস্য অনুযায়ী, সকাল ৭ টায় মৃত্যুর পূর্বে রোগীর অবস্থা অত্যন্ত ক্রিটিক্যাল হলে তাৎক্ষণিকভাবে চিকিৎসকের খোঁজ করা হলে ২ জন ইন্টার্ন চিকিৎসক রোগীকে একটু দেখে চলে যান। পরে তারা সহ বহু চেষ্টা করেও কোনো চিকিৎসকের সাহায্য ছাড়াই অপরিণত বয়সে নিরবে, নিভৃতে না ফেরার দেশে পাড়ি দেন প্রভাষক ও সংবাদকর্মী মো: মনিরুজ্জামান (মহসিন)  এর আপন ছোট চাচী চিকিৎসাধীন মমতাজ পারভীন এর ছোট বোন শাহানাজ পারভীন।   এদিকে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজে রাতে চিকিৎসকদের শেষ রাউন্ড দেয়ার পর সকাল পর্যন্ত তেমন ধরনের কোনো চিকিৎসা ব্যবস্থা নেই ভুক্তভোগীদের এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে অত্র মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের প্রতিষ্ঠাতা, সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী অধ্যাপক ডা: আ ফ ম রুহুল হক এমপি’র সাথে মোবাইলে আলাপকালে তিনি জানান, বিষয়টি আমি শুনলাম। এ বিষয়ে পরবর্তীতে কিভাবে এ সমস্যার সমাধান করা যায় তা সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সাথে আলাপ করে সমাধানের চেষ্টা করবো৷


এই শ্রেণীর আরো সংবাদ