HEADLINE
বল্লীতে বজ্রপাতে শিশুর মৃ’ত্যু ভোমরা স্থলবন্দরে অস্থিতিশীলতা সৃষ্টিকারীদের কোনভাবেই ছাড় দেওয়া হবে না বলাডাঙ্গায় জমি সংক্রান্ত বি’রো’ধে বড় ভাইয়ের হাতে ছোট ভাই খু’ন বৈষম্যের প্রতিবাদে সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ অফিসে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কর্মবিরতি সাতক্ষীরার উন্নয়ন ইস্যুতে ৫ এমপি’কে এক টেবিলে বসার আহবান সাতক্ষীরায় তামাক কোম্পানির বিজ্ঞাপণে সয়লাব, টার্গেটে কিশোর ও তরুণ সাতক্ষীরায় বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবস পালন সাতক্ষীরার পর এবার মাগুরার সিভিল সার্জনের বিরুদ্ধে জনবল নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ! কলারোয়ায় এক কৃষকের ঝু’ল’ন্ত লা’শ উ’দ্ধা’র কলারোয়ায় স্বামীর পুরুষা’ঙ্গ কে’টে দ্বিতীয় স্ত্রী’র আ’ত্ম’হ’ত্যা
সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ০৯:২৬ অপরাহ্ন

ডেঙ্গু প্রতিরোধে একমাত্র উপায় জনসচেতনতা

বিপ্লব মজুমদার / ৪১৪
প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২৩

বিপ্লব মজুমদার: সাবধানতা অবলম্বন সকল সমস্যা থেকে এড়ানোর একমাত্র উপায়। তাই যেকোনো সমস্যা মোকাবেলায় সচেতন হয়ে সেই অনুযায়ী কাজ করলে আমরা আমাদের দুর্ভোগ কমাতে পারবো।

বর্তমানে আমাদের দেশে ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব যথেষ্ট পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়েছে।ফলে হাসপাতাল ও বেসরকারি ক্লিনিক গুলোতে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত রোগীদের মৃত্যুর সংখ্যাও কম নয়। তাই বর্তমান পরিস্থিতিতে আমাদেরকে ডেঙ্গু জ্বরের প্রকোপ থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য সচেতন থাকতে হবে।

ডেঙ্গু একটি ভাইরাস জনিত রোগ। এডিস মশার কামড়ে এ রোগ হয়ে থাকে। বর্তমানে গ্রাম অঞ্চলের চেয়ে শহরাঞ্চলে ডেঙ্গুর প্রকোপ বেড়ে গেছে। এডিস মশা আবার চার প্রজাতির। এ চার প্রজাতির কামড়ে ডেঙ্গু হতে পারে। তাই এডিস মশা যাতে বংশবৃদ্ধি না করতে পারে সে বিষয়ে আমাদেরকে সচেতন থাকতে হবে। ডেঙ্গু জ্বরের আক্রান্ত রুগীর তীব্র জ্বর, মাথা ব্যাথা, বমির লক্ষণ এর পাশাপাশি সামন্য জ্বরে হার্ট,কিডনি ও ব্রেইন আক্রান্ত হতে পারে। সেজন্য দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। ডেঙ্গু জ্বরের জীবাণুবাহী মশা কোন ব্যক্তিকে কামড়ালে তিন থেকে তেরো দিনের মধ্যে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হতে পারে। ১০৪ থেকে ১০৫ ডিগ্রি ফারেনহাইট তাপমাত্রা উঠতে পারে। সেইসাথে মাথা ব্যথা, রক্তচাপ হঠাৎ কমে যাওয়া, ডায়রিয়া বা পাতলা পায়খানা, চোখের পেছনে বা মাথার পিছনে ব্যাথা অনুভূত হওয়া এবং আলোর দিকে তাকাতে কষ্ট হওয়া ডেঙ্গু জ্বরের লক্ষণ।তাই দ্রুত হাসপাতালে গিয়ে ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী চিকিৎসা গ্রহণ করতে হবে।

ডেঙ্গু জ্বরে যাতে আক্রান্ত হতে না হয় সে বিষয়ে সচেতন থাকতে হবে। বর্ষাকালে সাধারণত ডেঙ্গুর প্রকোপ বৃদ্ধি পায়। বর্ষাকালে বিভিন্ন স্থানে পানি জমে থাকার কারণে এডিস মশা ডিম পেড়ে বংশবিস্তার করতে পারে। এডিস মশা যাতে বংশবিস্তার করতে না পারে সে বিষয়ে লক্ষ্য রাখতে হবে। কোথাও জমা পানি থাকলে এডিস মশা ডিম পাড়ে। তাই আমাদের টবে জমা পানি, ভাঙ্গা হাড়ি পাতিল, বোতল, পরিত্যক্ত পাত্র, পরিত্যাক্ত টায়ারে যাতে পানি জমে না থাকে, সেদিকে সচেতন হতে হবে। ফ্রিজ বা এসির জমে থাকা পানি অপসারণ করে দিতে হবে। মশা নিধনের ঔষধ স্প্রে বা কয়েল ব্যবহার করতে হবে। বাড়ির আশপাশ সবসময় পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে যেন এডিস মশা বংশবিস্তার না করতে পারে। দিনে রাতে ঘুমানোর সময় অবশ্যই মশারি টাঙিয়ে নিতে হবে। বাইরে বেরোনোর সময় অবশ্যই ফুলহাতা জামা পরে বের হতে হবে। পরিবারের ছোট সদস্য ও বৃদ্ধদের প্রতি বিশেষ খেয়াল রাখতে হবে। কারণ মশার কামড় থেকে নিজেদের রক্ষা করতে পারলে আমরা ডেঙ্গু জ্বরের হাত থেকে রক্ষা পাবো।আমরা সকলেই যদি এভাবে সচেতন থাকতে পারি, তাহলে ডেঙ্গু জ্বর নামক ভয়াবহ রোগ থেকে পরিত্রান পাবো। সুতরাং সচেতনতাই হলো সুস্থ থাকার প্রথম এবং শেষ শর্ত।

লেখক: বিপ্লব মজুমদার
আশাশুনি, সাতক্ষীরা


এই শ্রেণীর আরো সংবাদ