চট্টগ্রামে নিহত নলতার মাঘুরালী গ্রামের সাগরের দাফন

চট্টগ্রামে নিহত নলতার মাঘুরালী গ্রামের সাগরের দাফন

মনিরুজ্জামান (মহসিন), নলতা (কালিগঞ্জ) :  চট্রগ্রামের পতেঙ্গার একেবার শেষ প্রান্তে ৩২ চাকার টেলরের অন্যতম চালক হিসেবে কাজ করতে যেয়ে মৃত্যুর ৪ দিনের দিন লাশ হয়ে বাড়ীতে ফিরতে হলো মো: মনিরুল ইসলাম সাগর (৩৩) নামক তরতাজা  এক যুবককে।  
নিহত যুবক সাতক্ষীরা জেলার কালিগঞ্জ উপজেলাধীন নলতা ইউনিয়নের মাঘুরালী গ্রামের  বাসতুল্যা সরদারের কনিষ্ঠ পুত্র। প্রাপ্ত তথ্যানুযায়ি, প্রায় ২ বছর পূর্বে বিবাহ করা মো: মনিরুল ইসলাম সাগর দীর্ঘদিন থেকে চালক হিসেবে ঢাকায় বিভিন্ন মালিকের প্রাইভেটকার চালাতো। গত এক থেকে দেড়মাস পূর্বে বেশি পারিশ্রমিকের আশায় এক মাধ্যম দিয়ে চট্রগ্রামের পতেঙ্গার শেষপ্রান্তে একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের ৩২ চাকার বড় টেলরের একপ্রান্তের চালকের আসনে বসে ১৭ জানুয়ারি রাতে বিভিন্ন শ্রমিক দ্বারা প্রয়োজনীয়  মালামাল লোড করতে থাকে মনিরুল ইসলাম সাগর। রাত আড়াইটার দিকে তার চালকের আসনের একটি পায়া ভেঙ্গে ঘুমন্ত অবস্থায় ভিতরে নিচে পড়ে যায়। নিচে পড়ার সময় একটি রডে লান্সে গুরুতর আঘাতপ্রাপ্ত হয়। স্থানীয় শ্রমিকরা সাথে সাথে পার্শ্ববর্তী হাসপাতালে নিলে কিছুক্ষণ পরে রাত ২টা ৫৫ মিনিটের দিকে সে মৃত্যুবরণ করেছে বলে জানা গেছে (ইন্নানিল্লাহি….  রাজিউন)।  মৃত্যুকালে সে পিতা, মাতা, স্ত্রী, বড় ভাই রবিউল ইসলাম, মেজ ভাই কবিরুল ইসলাম, ১ বোন, ভগ্নিপতি, চাচা-চাচী, চাচাতো ভাই-বোন সহ অসংখ্য শুভাকাঙ্ক্ষী রেখে গেছে। কিন্তু গত ১৭ জানুয়ারি রাতে সাগরের মৃত্যু হলেও মৃত্যুর প্রকৃত রহস্য উদঘাটন,লাশের মালিকানা সহ নানান কারণে সাগরের লাশ চট্টগ্রামে থাকা অবস্থায়  বাড়ী থেকে তার স্ত্রী, ভাই ও অন্যান্য আত্মীয়রা আইডি কার্ড সহ প্রয়োজনীয় প্রমাণাদি দেখানোর এক পর্যায়ে সকল প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে ১৯ জানুয়ারি বিকালে লাশের এ্যাম্বুলেন্স রওনা দিয়ে ২০ জানুয়ারি বুধবার সকাল সাড়ে ৯টায় নলতার মাঘুরালী তার বাড়ীতে লাশের গাড়ী পৌঁছায়। গত কয়েকদিন থেমে থেমে কান্নার পর লাশ বাড়ী আসার সাথে সাথে বাড়ীতে হৃদয় বিদারক অবস্থার সৃষ্টি হয়। স্থানীয় সহ বিভিন্ন এলাকা থেকে হাজির হওয়া অসংখ্য নারী-পুরুষ ও শুভাকাঙ্ক্ষীর কান্নায় এলাকার বাতাস ভারী হয়ে ওঠে।  পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী বুধবার  বেলা ১১ টায় মাঘুরালী হযরত শাহজালাল (র.) এঁর দরগাহ প্রাঙ্গণে মরহুমের নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়।  তার পূর্বে সংক্ষিপ্ত আলোচনা ও নামাজে জানাযা পরিচালনা করেন উত্তর মাঘুরালী জামে মসজিদের পেশ ইমাম মাওলানা মো: ফারুক হোসেন। জানাযার পূর্বে আরো আলোচনা রাখেন দক্ষিণ মাঘুরালী জামে মসজিদের পেশ ইমাম মাওলানা মো: আব্দুস সাত্তার।  অপরিনত বয়সে নিহত মনিরুল ইসলাম সাগর এর নামাজে জানাযায় আরো উপস্থিত ছিলেন মরহুমের পিতা, ভাই, চাচা, ভগ্নিপতি, অন্যান্য আত্মীয়-স্বজন, মো: হাবিবুর রহমান বিশ্বাস, মো: আফছার আলী মেম্বর, এড. মইনুল ইসলাম, প্রভাষক ও সংবাদকর্মী মো: মনিরুজ্জামান (মহসিন), আলহাজ্জ মতিউজ্জামান মন্টু, সাবেক মেম্বর আব্দুস সাত্তার মোল্লা, মো: আজিজুল হক সরদার,  আলহাজ্জ মো: আরশাদ আলী মোল্লা, এস এম আজহারুল হক, মো: রেজাউল ইসলাম, গফুর সরদার, শাহিনুর রহমান,বাবলু সরদার, ডা: শওকত হোসেন, সিরাজুল ইসলাম, শফিকুল ইসলাম, সেলিমউল্লাহ, উপজেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আবু তাহের সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ, প্রতিবেশী, শুভাকাঙ্ক্ষী তথা নানা শ্রেণি-পেশার ৫ শতাধিক মুসল্লী।২১ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার বাদ আছর তার বাসভবন তথা মাঘুরালী হযরত শাহজালাল (র.) এঁর দরগাহ প্রাঙ্গণে মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে মিলাদ শরীফ ও দোয়া অনুষ্ঠিত হবে।

Print Friendly, PDF & Email
এই সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন