কলারোয়ার কয়লা ইউপি নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থীর পোস্টর ছিড়ে ফেলা ও জীবন নাশের হুমকি

কলারোয়ার কয়লা ইউপি নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থীর পোস্টর ছিড়ে ফেলা ও জীবন নাশের হুমকি

মনিরুল ইসলাম মনিঃ কলারোয়ার ৩নং কয়লা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রচার প্রচারণায় বাধা ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর পোস্টর ছিড়ে ফেলার অভিযোগ উঠেছে।

সোমবার (২৯ মার্চ) কয়লা ইউনিয়নের দুইজন স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী কলারোয়া উপজেলা নির্বাচন অফিসার মনোরঞ্জন বিশ্বাস এর নিকট এবিষয়ে লিখিত অভিযোগ করেছেন।

কয়লা ইউনিয়ন পরিষদের আনারস প্রতীকের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মোঃ রফিক মোল্লা ও একই ইউনিয়নের মোটরসাইকেল প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী শেখ সোহেল রানা এই অভিযোগ করেন।

কয়লা ইউনিয়ন পরিষদের আনারস প্রতীকের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী রকিব মোল্লা অভিযোগ করে বলেন, গত রাতে কে বা কারা ইউনিয়নের ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডে ঝুলানো সমস্ত পোস্টর ছিঁড়ে ফেলেছে। পোস্টার ছিড়ে ফেলায় নির্বাচনী প্রচার প্রচারণায় মারাত্মক ক্ষতি হয়েছে। এছাড়া আমার প্রতিদ্বন্দ্বী নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মাস্টার আসাদুল ইসলাম বিভিন্ন সময়ে আমাকে হুমকি ধামকি দিচ্ছে। প্রকাশ্যে বলছে নৌকার প্রতীক ছাড়া ইউনিয়নে আর কোনো পোস্টর থাকবে না। জেলা ও উপজেলা নির্বাচন অফিসারের দৃষ্টি আকর্ষণ করে তিনি আরো বলেন, এতে নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্ঘন হয়েছে। এবিষয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ জানাই।

একই ইউনিয়নের মোটরসাইকেল প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী শেখ সোহেল রানা অভিযোগ করে বলেন, নৌকার প্রার্থী আমার পোস্টের ছিড়ে ফেলেছে। ইউনিয়নের কোথাও আমার পোস্টের রাখতে দিচ্ছে না। আমাকে হুমকি দিচ্ছে। প্রচার প্রচারণায় বাধা দিচ্ছে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মাস্টার আসাদুল ইসলাম। এ ব্যাপারে নির্বাচন অফিসারের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছি।

এ বিষয়ে কলারোয়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মনোরঞ্জন বিশ্বাস জানান, ৩ নং কয়লা ইউনিয়নের আনারস প্রতীক ও মোটরসাইকেল প্রতীকের দুইজন স্বতন্ত্র প্রার্থী লিখিত অভিযোগ দিয়েছে। তারা অভিযোগে বলেছে কে-বা কারা তাদের পোস্টার ছিড়ে ফেলেছে। তারা কারোর নাম উল্লেখ করেনি। তবে খোঁজ খবর নিয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে কয়লা ইউনিয়নের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী সোহেল সাংবাদিকদের জানান তিনি মারাত্মকভাবে আতঙ্কগ্রস্থ তাকে জীবননাশের হুমকি দেয়া হচ্ছে এবং প্রকাশ্যে তার প্রচারণায় বাধা দেয়া হচ্ছে তার কর্মীকে তার কর্মীদের কে বাদ দেয়া হচ্ছে মাইকে ঘোষনা দেয়া হচ্ছে নৌকা ছাড়া অন্য কোন প্রতিষ্ঠানে থাকবে না প্রার্থীসহ তার কর্মীরা এবং আতঙ্কগ্রস্থ প্রচারণায় হামলা মারপিট মারপিট আতঙ্ক বিরাজ করছে এ বিষয়ে তিনি প্রশাসনসহ নির্বাচন কমিশন ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর দৃষ্টি কামনা করেছেন। 

Print Friendly, PDF & Email
এই সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন