বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ১২:৩৫ অপরাহ্ন

করোনা কালে আশঙ্কাজনকহারে বেড়েছে বাল্যবিবাহ

কচুয়া প্রতিনিধি / ১৯৪
প্রকাশের সময় : বুধবার, ৬ অক্টোবর, ২০২১

বাগেরহাটের কচুয়া উপজেলায় করোনাকালে ৫১৬ জন শিক্ষার্থীর বাল্যবিয়ে হয়েছে।মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলোর তথ্য সূত্রে এ খবর জানা গেছে। বাগেরহাট জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. কামরুজ্জামানের দেয়া তথ্যানুযায়ী, ২০২০ সালের ১৮ মার্চ চলতি বছরের ১২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কচুয়া উপজেলায় ৫১৬ জন শিক্ষার্থী বাল্যবিয়ের শিকার হয়েছে।


নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকাবাসী জানান, কচুয়া উপজেলার রাঢ়ীপাড়া ইউনিয়নের বারুইখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১০ শ্রেণির এক রোল ধারী ছাত্রীর বাল্য বিয়ে হয়েছে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শেখ সুলতান আলী সোমবার দুপুরে জানান, ওই ছাত্রী বিদ্যালয়ে আসছে এবং সে এসএসসি পরীক্ষার্থী।
কচুয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জীনাত মহলের তথ্য অনুযায়ী, বাল্য বিয়ে প্রতিরোধের জন্য শিক্ষার্থীদের শিক্ষামুখি করার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। এছাড়াও ইউপি চেয়ারম্যান, মেম্বারসহ বিভিন্ন পর্যায়ের মানুষদের সচেতন করা হচ্ছে।
করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে দেড় বছর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় কচুয়া উপজেলা সহ বাগেরহাটের মোট ৯ উপজেলায় আশঙ্কাজনকহারে বাল্যবিবাহ বেড়েছে।এর মধ্যে ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী এবং চলতি বছরের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের মধ্যে বেশি বিয়ে হয়েছে। গত ১২ সেপ্টেম্বর স্কুল ও মাদরাসা খোলার পর থেকে ধীরে ধীরে সামনে আসতে থাকে বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থীর বাল্যবিবাহের বিষয়টি। এর সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বিচ্ছেদও বেড়েছে জেলায়। সরকারি তথ্য অনুযায়ী করোনাকালে বাগেরহাটে ৩ হাজার ১৭৮ জন শিক্ষার্থী বাল্যবিবাহের শিকার হয়েছে।অন্যদিকে ২০২০ সালে এক বছরে বিবাহ বিচ্ছেদ হয়েছে ২ হাজার ৭৯৯টি। 


এই শ্রেণীর আরো সংবাদ