কপিলমুনিতে মৃত সনদে ইউপি সচিবের অর্থ আদায়

কপিলমুনিতে মৃত সনদে ইউপি সচিবের অর্থ আদায়

কপিলমুনি প্রতিনিধিঃ কপিলমুনিতে মৃত্যু রেজিষ্ট্রারে ভুল সংশোধন ও মৃত সনদ পত্র সঠিক করতে ২নং কপিলমুনি পরিষদের ইউপি সচিব মোঃ আঃ গণি গাজীর বিরুদ্ধে অর্থ আদায়ের অভিযোগ উঠেছে। এ সংক্রান্ত বিষয়ে ভুক্তভোগী জিয়াউর রহমান উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন।

অভিযোগে প্রকাশ, পাইকগাছা উপজেলার কপিলমুনি নাছিরপুর গ্রামের শেখ জিয়াউর রহমানের পিতা শেখ নুর ইসলাম ২৩ ফেব্রুয়ারি মৃত্যুবরণ করেন। এসময় সংশ্লিষ্ট পরিষদবর্গ মৃত্যু রেজিষ্ট্রারে তার পিতার নাম অর্ন্তভুক্ত করেন। পরবর্তীতে পুত্র জিয়াউর পিতার মৃত্যু সনদ গ্রহণের সময় নামের স্থলে তথ্যগত নানা অসঙ্গতি দেখতে পান। তখন জিয়াউর রহমান পরিষদের মৃত্যু রেজিষ্ট্রারে তার পিতার নাম সঠিক করে পূর্ণাঙ্গ ভাবে লেখার জন্য ইউপি সচিবকে অনুরোধ করেন। এমতাবস্থায় ইউপি সচিব গণি গাজী ইউএনও অফিসের দোহায় দিয়ে ভুক্তভোগীর কাজ থেকে ৭’শত টাকা গ্রহণ করেন বলে অভিযোগে উল্লেখ করেছেন। কিন্তু অদ্যাবধি তার পিতার নাম সংশোধন হয়নি। একপর্যায়ে কারণ জানতে ২০ এপ্রিল ২.৩০ মিনিটের দিকে পরিষদ প্রাঙ্গণে গেলে ইউপি সচিব গণি গাজী অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ পূর্বক এক পর্যায়ে দেখে নেওয়ার হুমকি দেয় বলে জানান জিয়াউর রহমান। এ বিষয়ে প্রতিকার চেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন তিনি। এব্যাপারে জানতে চাইলে ইউপি সচিব মোঃ আঃ গণি গাজী বলেন, জিয়াউর রহমান তার পিতার নাম সংশোধনের জন্য আমার কাছে এসেছিল। তবে তার সাথে কোন টাকা পয়সার লেনদেন হয়নি। এ ব্যাপারে উক্ত পরিষদের চেয়ারম্যান কওছার আলী জোয়ার্দ্দার বলেন, বিষয়টি আমার জানা নাই। তবে আমি খোঁজ নিয়ে দেখবো। রেজিষ্ট্রারে মৃত্যু ব্যক্তির নাম সংশোধন ও সনদ পত্র গ্রহণের ক্ষেত্রে টাকা নেওয়ার কোন প্রশ্নই আসেনা।

Print Friendly, PDF & Email
এই সংবাদটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন