বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ০৩:০৩ পূর্বাহ্ন

আশাশুনির হামকুড়া-গাবতলা সড়ক নির্মানে অনিয়মের অভিযোগ

জি এম মুজিবুর রহমান, আশাশুনি / ১৫৫
প্রকাশের সময় : রবিবার, ১৮ জুলাই, ২০২১

আশাশুনি উপজেলার কুল্যা ইউনিয়নের হামকুড়া টু গাবতলা সড়ক নির্মান কাজে অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে।
সড়কের কাজ শুরু হওয়ার পর থেকে মাটির কাজ, বালুর কাজ, খোয়ার কাজ ও রুলার করার কাজে শুরু থেকে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। রাস্তার মাটির কাজের সময় রাস্তার ¯েøাবের গা ঘেঁষে বেকু মেশিনদিয়ে মাটি রাস্তায় দেওয়া হয়েছে। ফলে বৃষ্টিপাত ও নদী-খাল ও বিলে পানি বেশী হওয়ায় ¯েøাব ভেঙ্গে মাটি কেটে নেওয়ায় সৃষ্টগর্তে গিয়ে মাটি পড়তে শুরু করেছে। সড়কের গা ঘেষে মাটি কাটার নিয়ম না থাকলেও অনিয়মের মাধ্যমে মাটি কাটার পর পুরো রাস্তাটি হুমকীর মধ্যে রয়েছে। চলতি বর্ষা মৌসুমে সড়কের ¯েøাবের বড় অংশ ভেঙ্গে ও ধসে যেতে পারে। ইতিমধ্যে অনেক স্থানে ধ্বস নেমেছে এমনকি কোথাও কোথাও সড়কে ছিন্দ্র হয়ে বর্ষার পানি পাশে গিয়ে পড়তে দেখা গেছে। তাছাড়া সড়কে বালি ও খোয়ার কাজ করার সময় ও করার পরে দীর্ঘ সময় কাজ না করায় সড়কটিতে ব্যাপক ময়লা, কাদামাটি জমেগেছে। ময়লা ও কাদামাটি যথাযথ ভাবে পরিস্কার না করে তার উপর দিয়ে ইটের খোয়া ফেলান হচ্ছে। ইটের খোয়া নিছের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ১নং ইট বা পিকেট ইট কাজের স্থানে এনে খোয়া করার নিয়ম থাকলেও ব্যাত্যয় ঘটান হচ্ছে। ১নং বা পিকেট ইটের পরিবর্তে ২ নং ইট এবং অনেক ক্ষেত্রে ১নং ও ২নং ইটের মিশ্রনে খোয়া তৈরি করে কাজে লাগান হচ্ছে। এলাকার সচেতন কেউ কেউ প্রতিবাদ জানালেও গুরুত্ব দেওয়া হয়নি। খারাপ ইট ফিরিয়ে দিয়ে ভাল ইট আনা হবে এমন কথা দিয়েও মানা হয়নি, এমন অনেক অভিযোগ এলাকার মানুষের কাছ থেকে পাওয়া গেছে।

এব্যাপারে ঠিকাদারের সাথে কথা বলতে তার মোবাইলে রিং করা হলেও রিসিভ করেননি। উপজেলা ইঞ্জিঃ আক্তার হোসেন জানান, ময়লা-কাদামাটির উপর দিয়ে কাজ করা যাবেনা। ১নং ও পিকেট ইট কাজের স্থানে এনে খোয়া করাতে হবে। কোন অনিয়ম করা হলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি আরও বলেন, কাজের ঠিকাদার মোবাইল ধরেনা, এলাকায় আসেনা। এমন নানাবিধ কারণে ঠিকাদারের বিরুদ্ধে নির্বাহী প্রকৌশলী স্যারের বরাবর লিখিত ভাবে জানান হয়েছে।


এই শ্রেণীর আরো সংবাদ